Archive for August, 2013

August 10, 2013

ইতিহাসপাতাল

মূল লেখার লিংক
হাসপাতালে আমাদের রোজকার ডিউটি বারো ঘন্টার শিফটে হলেও অ্যাডমিশন ডিউটি থাকতো টানা চব্বিশ ঘন্টার। আর চব্বিশ ঘন্টা ডিউটি প্রায় সবসময়েই তিরিশ ঘন্টা ছাড়িয়ে যেতো। কারন অ্যাডমিশনের পরে দিন সকালবেলা আগের পুরো দিনে ভর্তি হওয়া সব পেশেন্ট দেখে , কোন ঝামেলা হলে সেইটা সামলে, আউটোডোরে চার ঘন্টা বসে ওখানে আসা পেশেন্ট দেখা শেষ করে তারপর ছুটি।

বৃহষ্পতিবার হাসপাতালে অ্যাডমিশন ডিউটি করার একটাই ভালো দিক ছিলো, আউটডোর বন্ধ থাকার কারণে শুক্রবার সকালবেলা নয়টা দশটার মধ্যে ছুটি হতো, সেই সারা দিন হয় ঘুমোনো যেতো নাহয় গিয়ানজাম করা যেতো। (যদি না ওই শুক্রবারটা মাসে যে একটা শুক্রবার ডিউটি করতে হয় সবাইকে পালা করে, সেই শুক্রবারটা না হয়) । আমিও কায়দাকানুন করে চেষ্টা করতাম ওইদিনের ডিউটি নেয়ার জন্য।

read more »

Advertisements
August 10, 2013

আকাশে ছড়ানো মেঘের কাছাকাছি

মূল লেখার লিংক
দুইহাজার এক দুই সালের দিকে একটা কম্পিউটার গেইম খুব খেলতাম, মাইক্রোসফট ফ্লাইট সিমুলেটর। গেমসটা ছিলো বিমান চালানোর একেবারে বেশিরকমের নিখুঁত একটা সিমুলেশান। এতোটাই নিঁখুত যে প্রথমে এইটা কে অফিশিয়ালি রিলিজ দেয়া নিয়ে বেশ ঝামেলা হয়েছিলো। নিন্দুকেরাও বলে টুইন টাওয়ারে হামলাকারী নাকি এইটা ব্যবহার করে অনেক প্রাক্টিস করেছিলো।

অর্ধবৃত্তাকার জানালা দিয়ে বাইরে তাকিয়ে আমার মনে হলো সেইরকম কোন একটা ফ্লাইট সিমুলেটর গেমের মধ্যে ঢুকে গেছি। এই ক্ষুদ্র জীবনে অনেকবারই বিমানে চড়া হয়েছে, কিন্তু বিমানের জানালা দিয়ে বাইরে তাকালেই মেঘে মোড়ানো পাইন গাছের ডগা, ডগার একটু নিচেই কি জানি কি এক পাখির বাসা, মেঘ একটু ফাঁক হয়ে গেলে নিচে ঘন সবুজ শস্যের খেত, খেতে কাজ করছে রঙচঙে কাপড় পরা মেয়েরা, ডানার অল্প ওপাশেই আকাশের দিকে উঠে গেছে সবুজ থেকে হাল্কা সবুজ- এর থেকে শাদা হওয়া পাহাড়– এইরকম দৃশ্য দেখা এই প্রথম।

read more »

August 8, 2013

রিভিউঃ কয়েকজন শার্লক হোমসের কম্পাইলেশন

মূল লেখার লিংক

শার্লক হোমস এর সাথে প্রথম পরিচয় যখন আমি ক্লাস থ্রিতে পড়ি। চাঁদপুরে মুক্তিযুদ্ধ বিজয় মেলায় ছোটখাটো একটা বইয়ের স্টল সবসময়ই থাকে। ওখান থেকে শার্লক হোমসের ১০-১২টা গল্পের বাংলা অনুবাদের বইটা কিনেছিলাম। বইটার মলাটে ছিলো ডিয়ারস্টকার হ্যাট পরা এক লম্বা নাকের ভদ্রলোক পাইপ টানছেন।

read more »

August 8, 2013

এই গ্রহের সবচাইতে ধনী মানুষদের প্রাইভেট প্লেনের কথা

মূল লেখার লিংক

১। উপরের এই প্লেনটার নাম এমব্রায়ার লিগেসি ৬৫০। প্রথম ছবিটা বাইরের বডির ছবি আর পরেরটা এর মালিক সহ ছবি।
এটার দাম ২৯ মিলিয়ন ডলার প্রায় ২৩৫ কোটি টাকা! এটার মালিক বিখ্যাত চীনা অভিনেতা কুংফু ছবি খ্যাত জ্যাকি চান। প্লেনটাতে দুপাশে জ্যাকি চানের লোগো আছে ফলে সবাই বুঝতে পারে ভেতরে কে আছেন।

read more »

August 5, 2013

পুলিৎজার পুরস্কার ও পাঁচটি ছবির পিছনের গল্প

মূল লেখার লিংক
পুলিৎজার পুরস্কার হচ্ছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের একটি পুরস্কার, যেটি সংবাদ মাধ্যম, সাহিত্য ও সংগীতে বিশেষ অবদান রাখার জন্য প্রতিবছর প্রদান করা হয়ে থাকে। হাঙ্গারী তে জন্মগ্রহণ করা মার্কিন সাংবাদিক জোসেপ পুলিৎজার এর রেখে যাওয়া উইল এর বৌদলতে ১৯১৭ সালে এ পুরষ্কারের প্রচলন ঘটে। নিউইয়োর্কের কলোম্বিয়া ইউনিভার্সিটি এই পুরস্কার প্রদানের যাবতীয় কার্যক্রম সম্পন্ন করে থাকে। ২১ টি ক্যাটাগরিতে দেওয়া হয়ে থাকে এ পুরষ্কারটি।

এই ২১ টি ক্যাটাগরির মধ্যে অন্যতম হচ্ছে ‘ফিচার ফটোগ্রাফী’ এবং ‘ব্রেকিং নিউজ ফটোগ্রাফী’ পুরষ্কার দুটি। ১৯৬৭ সালের পর ‘রিকগনাইজেবল ফটোগ্রাফি’ বিভাগটিকে ভাগ করে এ দুটি ক্যাটাগরিতে ভাগ করে পুরষ্কার দেওয়া হয়ে থাকে। তো আসুন আর কথা না বাড়িয়ে দেখে নেওয়া যাক পুলিৎজার পুরস্কার প্রাপ্ত কিছু ছবি, এবং জেনে নেওয়া যাক সেসব ছবির পিছনের গল্পটি।

read more »

August 5, 2013

আহ! ঢাকাই খাবার!

মূল লেখার লিংক
গমগম করছে চকবাজার। হইহুল্লোড় চলছে খুব। চলছে ব্যবসায়ীদের অবিশ্রান্ত বিকিকিনি। হঠাৎ নকিব আর চোপদারদের ছুটোছুটি…হুঁশিয়ার…! নবাব পরিবারের কেউ এলেন বোধ হয়। ৩০০ বছর আগের কোনো একদিনের ছবি এটি।
আজ নবাব মুর্শিদ কুলি খাঁ নেই। কিন্তু তবু সেই আগের মতোই গমগম করে চকবাজার। এখনো হাজারো সওদার পসরা সাজিয়ে বসেন ব্যবসায়ীরা। বাতাসে সুবাস ছড়ায় বৈচিত্র্যময় সব ঢাকাই খাবার। আর সেসবের স্বাদ আস্বাদনে দূরদূরান্তের মানুষ এসে জড়ো হন এখানে।
ঐতিহাসিকেরা বলছেন, ৪০০ বছর আগে ঢাকা যখন প্রাদেশিক রাজধানী হিসেবে স্বীকৃতি পায়, তারও আগে ঢাকায় জনবসতি ছিল। তাদের খাদ্যতালিকা, রন্ধনপ্রণালি ছিল এক রকম। রাজনৈতিক পটপরিবর্তনের সঙ্গে সঙ্গে ঢাকার আদি খাবারে অন্য সব সংস্কৃতির প্রভাব পড়ে। বহু বিবর্তনের পর খাবারে পরিবর্তন, পরিবর্ধন, সংযোজন-বিয়োজনে নতুন ধারার খাবারদাবার আত্মপ্রকাশ করে।

read more »

August 5, 2013

ইমার্জেন্সির দিন-রাত্রি

মূল লেখার লিংক
বাচ্চাটার বয়স দুই বছর। জরুরী বিভাগের টেবিলে শুয়ে চিৎকার করছিলো ব্যথায়। খেলার সময় চোখে ঢিল মেরেছে আরেকটি বাচ্চা। ভয়ংকরভাবে ফুলে গেছে চোখ। ভেতর থেকে চুঁইয়ে রক্ত মিশ্রিত অশ্রু ঝরছে চোখ থেকে। সাথে যে মহিলাটি এসেছে সে বাচ্চাটি হাত দিয়ে ধরে রেখেছে, কিন্তু তাঁর চোখ দিয়ে ঝরছে পানি। একজন পুরুষও ধরে রেখেছে বাচ্চাকে, বিধ্বস্ত চেহারা।

অনেক সময় দেখা যায় চোখের ইনজুরিতে চোখের পাতা বা আইলিড নিজে বড় হয়ে ফুলে যায় কিন্তু চোখের প্রধান অংশগুলো রক্ষা পায় ক্ষতির হাত থেকে। খুব আশা করছিলাম যেন অবোধ শিশুটিরও যেন তাই হয়। তবে তা হলো না। চোখের ভেতর কর্নিয়া ছিদ্র হয়ে গেছে। সাথে বেরিয়ে পড়েছে চোখের কিছু ভেতরের গুরুত্বপূর্ণ অনুসঙ্গ। আইবলের ভেতরে রক্ত জমছে। রক্ত ঢেকে দিয়েছে চোখের দৃষ্টি। খুব খারাপ ধরণের ইনজুরি। এই চোখে স্বভাবিক দৃষ্টি ফিরিয়ে আনা খুব ভাগ্যের ব্যাপার।

read more »

August 5, 2013

ভিনদেশী পত্রিকায় স্বদেশ

মূল লেখার লিংক
লিসবেথ নামের আমাদের এক বয়স্ক সহকর্মী তার প্রতিদিনের পত্রিকাটি পড়া শেষ হলে আমার বউ এর টেবিলে রেখে যায় যেন অন্তত হেডলাইন গুলোতে চোখ বুলাতে গিয়ে অথবা কোন পৃষ্ঠার ছবি দেখে উৎসাহী হয়ে খবরটি পড়ার চেষ্টা করে এবং ধীরে ধীরে নরওয়েজিয়ান ভাষাটা শিখে ফেলে! আমাকেও নানান ভাবে উৎসাহ দেয় যাতে তাদের ভাষাটি শেখার চেষ্টা করি। আমাদের এখনকার কাজের জন্য ভাষা শেখা জরুরী না হলেও, লম্বা সময় এদেশে থাকতে চাইলে ভাষা শিখে নেয়াটাই ভালো। আমরা বুঝতে পারি নিয়মিত এই পত্রিকা রেখে যাওয়াটা আমাদের প্রতি তার স্নেহের বহিঃপ্রকাশ। এই বিদেশ বিভূঁইয়ে আমরা তাদের ভাষা শেখার চেষ্টা করছি, আধো-আধো বোলে তার সাথে কথা বলার চেষ্টা করছি। এসব নিশ্চয়ই তাকে আনন্দ দেয়। বাসায় টেলিভিশনে এনআরকে (এখানকার বিটিভি!) ছেরে রাখি যাতে লিসেনিংটাও ফাঁকতালে ইমপ্রুভ হয়। আমি সপ্তাহে একদিন ক্লাশ হয় এমন একটি কোর্সের লেভেল ওয়ান শেষ করেছি কেবল। আর বউ শেষ করেছে লেভেল থ্রি। সে এক বছর বয়সী নতুন কথা বলা শেখা শিশুর মত টুকটাক কথা বলতে পারে, নিজের জানা ভোকাবুলারির মধ্যে থাকলে কিছু কথা বুঝতেও পারে।

read more »

August 4, 2013

জাদুকরী নির্মাতা ‘মাজিদ মাজিদি’

মূল লেখার লিংক
জাদুকরী নির্মাতা ‘মাজিদ মাজিদি’

‘মাজিদ মাজিদি’। ইরানী চলচ্চিত্রের ইতিহাসে একটি শক্তিশালী নাম যার নির্মিত সবগুলো ছবিই অসাধারণ এবং  উঁচু মানের। অ্যাকাডেমি অ্যাওয়ার্ড বা অস্কারের ইতিহাসে প্রথম যে ইরানী চলচ্চিত্রটি বিদেশী ভাষার সেরা চলচ্চিত্র হিসেবে মনোনয়ন পায় সেটি ‘চিলড্রেন অফ হ্যাভেন’, যার নির্মাতা ‘মাজিদ মাজিদি’। ইরানী চলচ্চিত্র দেখেন অথচ ‘মাজিদ মাজিদির’ নাম শোনেননি- এরকম মানুষ খুঁজে পাওয়া মুশকিল। আর যারা তাকে চেনেন তাদের সঙ্গে নতুন করে মাজিদিকে পরিচয় করিয়ে দেয়ার কিছু নেই। তারা একবাক্যেই স্বীকার করবেন- মাজিদির চলচ্চিত্র মানেই সাধারণের ভেতর থেকে অসাধারণ  কিছু বের করে আনা।

read more »

August 4, 2013

টেনিদা, আমার নায়ক

মূল লেখার লিংক
বনভোজনের রফা করতে করতে শেষ পর্যন্ত লিস্টিটা যা দাঁড়াল তা হচ্ছে এই-

খিচুড়ি ( প্যালা রাজহাঁসের ডিম আনবে বলিয়াছে)
আলু ভাজা ( ক্যাবলা ভাজিবে)
পোনা মাছের কালিয়া ( প্যালা রাঁধিবে)
আমের আঁচার ( হাবুল দিদিমার ঘর হতে হাত সাফাই করবে)
রসগোল্লা, লেডিকিনি ( ধারে ম্যানেজ করিতে হইবে)

লিস্টি শুনে আমি হাঁড়িমুখ করে বললাম, ওর সাথে আরেকটা আইটেম জুড়ে দে – টেনিদা খাবে !

ব্যস এসে গেছেন তিনি! সর্বদাই পরের মাথায় কাঁঠাল তো কাঁঠাল, পারলে পৃথিবী ভেঙ্গে খাবেন। একবার যেই বলেছি, তুমি খাওয়াবে?

সাথে সাথে পিঠের উপরে পেল্লাই এক চড় মেরে বলল, বদনাম দিস নি বলে দিচ্ছি! আমি টেনিরাম শর্মা – কাউকে কক্ষনো খাওয়াই না – নিজেই খেয়ে থাকি বরাবর। এ হচ্ছে আমার নীতি মানে প্রিনসিপাল। তোকে খাওয়াতে যেয়ে আমার প্রিনসিপাল নষ্ট করব!

read more »

August 4, 2013

টমাস আলভা এডিসন [১৮৪৭-১৯৩১]

মূল লেখার লিংক

এডিসনের জন্ম ১৮৪৭ সালের ১১ ফেব্রুয়ারী কানাডার মিলানে। তার পিতা ছিলেন ওলন্দাজ বংশোদ্ভূত।এডিসন ছিলেন স্যামুয়েল অগডেন এডিসন ও ন্যন্সি ম্যাথিউস এলিয়টের সপ্তম এবং সর্বশেষ সন্তান।

read more »

August 3, 2013

ফিরে আয় ম্যামথ!

মূল লেখার লিংক

এবছরের জুন মাসের ৫ তারিখে একটা প্রত্নতাত্ত্বিক এবং বৈজ্ঞানিক আবিষ্কার দুনিয়াজুড়ে মিডিয়াতে বেশ গুরুত্ব নিয়ে প্রকাশিত হয়েছিল। ১০,০০০ বছরের পুরানো এক উলি ম্যামথের দেহাবশেষ খুঁজে পাওয়া গিয়েছে লায়াখোভস্কি নামক এক সাইবেরিয়ার দ্বীপে।

read more »

August 3, 2013

ছবি ব্লগ- সুন্দর সুন্দরবন, কুৎসিত মানুষ

মূল লেখার লিংক
295402_10152469576980497_45282382_n

অনেক আগে পাখিবিশেষজ্ঞ প্রকৃতিপ্রেমী ইনাম আল হককে জিজ্ঞাসা করছিলাম, প্রকৃতি রক্ষায় বাঙ্গালীর মত কেয়ারলেস জাতি কি বিশ্বে আর আছে? উনি সাথে সাথেই বলেছিলেন- অনেক আছে, এই থাইল্যান্ডের কথায় ধরেন, সেখানে মানুষের লোভের কাছে, প্রয়োজনের কাছে প্রকৃতি সম্পূর্ণ পরাজিত।

read more »

August 3, 2013

অন্নপুর্না বেস ক্যাম্প ট্রেক-১

মূল লেখার লিংক
শেষ ট্রেকিং এ গিয়েছিলাম বছর দুয়েক আগে, সান্দাকফু, নেপাল-ইন্ডিয়ার বর্ডারে, পশ্চিম বঙ্গের সর্বোচ্চ চূড়া। সচলে লেখাও দিয়েছিলাম দু পর্ব। কিন্তু আলসেমি আর মেরুদন্ডের স্পন্ডালাইসিস রোগে আর লেখা হয়ে উঠেনি। এর পর বেশ কবারই হিমালয়ে যাওয়া হয়েছে কিন্তু ট্রেকিং করে নয়, পরিবার নিয়ে সাইট সিয়িং ধরনের। নিরাপদ দুরত্বে দাঁড়িয়ে পর্বতের দিকে তাকিয়ে আহা উহু করা। তাই অনেকদিন ধরেই প্ল্যান করছিলাম আরেকটি ট্রেকিংয়ের। ইচ্ছে অন্নপুর্না বেস ক্যাম্প যাবার। অফিসের ঝামেলায় বেশ কটি প্রচেষ্টা ব্যার্থ হবার পর গত নভেম্বরে আমি আর আমার ট্রেকিং পাগল দুই বন্ধু আরেকটি প্ল্যান প্রায় গুছিয়ে আনি। ছুটি ও ম্যানেজ হলো সবার। ‘যাচ্ছি’, এই ব্যাপারটা ফাইনাল হবার পর বসলাম রুট প্ল্যান নিয়ে। ওয়েবসাইট ঘেটে আর পরিচিত যারা আগে গিয়েছে তাদের সাথে কথা বলে দুটি রুট নির্বাচন করা হলো। ট্রেকটি দুভাবে শেষ করা যায়। একটি হলো পোখারার অদুরে ফেদি নামক জায়গা থেকে শুরু করে মোটামুটি সরল রেখা ধরে বেস ক্যাম্প পর্যন্ত উঠে যাওয়া, মাঝে ব্যাক্তিগত ফিটনেস লেভেল আনুযায়ী যে কয়টি রাত্রি যাপন প্রয়োজন হয় (পাঁচ থেকে সাত) আর আরেকটি হচ্ছে ফেদি থেকে আরেকটু দূরে নয়াপোল নামক জায়গা থেকে শুরু করে কিছুটা সার্কুলার পথে টিকেধুংগা, ঘোড়েপানি, পুনে হিল, তাদাপানি হয়ে প্রথম রুটটির সরল রৈখিক পথের মাঝামাঝি গিয়ে মিশে তারপর কমন পথ ধরে বেস ক্যাম্প।

read more »

August 2, 2013

স্টুডিও অ্যাপার্টমেন্ট

মূল লেখার লিংক
আমি এ যুগের হরিপদ কেরানী। আমার গ্রামের ঠিকানা আপনারা জানবেন না। কিন্তু আমার শহরের ঠিকানা আপনারা চেনেন। শহরে নিন্মবিত্তদের জন্য তৈরী অগুনতি খুপড়ির একটিতে আমি থাকি। আমি একা থাকি না, আমার সাথে মা থাকে, বউ থাকে, সন্তান থাকে, ছোট দুই ভাই থাকে। বাবা বেঁচে থাকলে তিনিও থাকতেন। সুমনের ‘দশফুট বাই দশ ফুট’ গানটি শুনেছেন? আমি ছাত্রজীবনে শুনেছিলাম। এখন আমি সেই দশ ফুট বাই দশফুট ঘরে থাকি। সবাইকে নিয়ে। বিশ্বাস হয় না? না হবারই কথা। কারণ আপনারা এরকম জীবন দেখেননি।

আমি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এমএ পাশ করেছি ইতিহাসে। পাশ করে আমি চাকরী পেয়ে গেছি তিন মাসেই। তার আগে আমি টিউশানি করে সংসার চালাতাম। তখন বেড়ার একটা বস্তি ঘরে থাকতাম। চাকরী পেয়ে আমি উন্নত বাসায় চলে আসি। হ্যাঁ আগের চেয়ে খুব উন্নত এই বাসা। ঝড় বৃষ্টি বাদলায় না ঘুমিয়ে চৌকির উপর বসে থাকতে হবে না আর। একটা পাঁচতলা দালানের তিন তলায় দশ ফুট বাই দশফুট একটা ঘর।

read more »