Archive for March, 2017

March 29, 2017

প্রাচীন মিশরের ফারাওদের অদ্ভুত যত কাহিনী

মূল লেখার লিংক
মিশর নামক দেশটির নাম শুনলে আমাদের মানসপটে প্রথমেই যে দুটি চিত্র ভেসে ওঠে তা হলো ‘পিরামিড’ ও ‘মমি’। তবে এর সাথে আরেকজন ব্যক্তির পদবীও আমাদের মনে মাঝে মাঝে উঁকি দিয়ে যায়, তিনি হলেন ফারাও। প্রাচীন মিশরের জনগণের ধর্মীয় ও রাজনৈতিক এ সর্বোচ্চ নেতা ছিলেন দেশটির সর্বময় ক্ষমতার অধিকারী।

read more »

Advertisements
March 29, 2017

কোথায় সেই রহস্যময় স্বর্ণ নগরী: এল ডোরাডো

মূল লেখার লিংক
সোনার শহরের কথা উঠলেই চেখের সামনেই প্রথমেই ভেসে উঠে সেই স্বপ্নের শহর ‘এল ডোরাডো’, যেখানে ছড়িয়ে  রয়েছে সোনার যত গুপ্ত ভাণ্ডার। কিংবদন্তি এই শহরকে ঘিরে রয়েছে কতোই না উপাখ্যান আর নানা কল্পকাহিনী। শহরটির খোঁজে পৃথিবীর বিভিন্ন দেশের কতশত অভিযাত্রী ছুটে বেড়িয়েছে। পাড়ি দিয়েছে কত দুঃসাহসী অভিযান। কিন্তু সেই স্বপ্নের শহর ‘এল ডোরাডো’র দেখা কি পেয়েছিল তারা? নাকি সবই ছিল মরীচিকা? চলুন আজ সেই পরশ পাথরের সন্ধানে বেরিয়ে পড়া যাক!
স্প্যানিশ ভাষায় এল ডোরাডো মানে ‘যেটি সোনা’। এটি এসেছে এল অমব্রে দোরাদো (El Hombre Dorado) বা ‘সোনার মানুষ’ থেকে। অনেক দিন আগে দক্ষিণ আমেরিকার কলম্বিয়ায় এক আদিবাসী গোষ্ঠী ছিল মুইসকা।

মুইসকা আদিবাসী দলনেতার সারা গায়ে সোনার গুঁড়ো মেখে গুয়াতাভিতা লেকে নিয়ে যাওয়ার দৃশ্য। ছবি সূত্র: emaze.com

read more »

March 23, 2017

রোমান সাম্রাজ্যের সংক্ষিপ্ত ইতিহাস

মূল লেখার লিংক
কালিক সীমায় রোমান সাম্রাজ্যের ব্যপ্তি দুই হাজার বছর। সেই খ্রিস্টপূর্ব পঞ্চম শতক থেকে শুরু হওয়া রোমান সভ্যতা সিজারদের সময় পৌছায় পরাক্রমের শীর্ষে তারপর কালক্রমে বহু ঘাত প্রতিঘাতের মধ্য দিয়ে বিলীন হয়ে যায় পঞ্চদশ শতকে। অর্থাৎ হযরত মুহাম্মদ (সা.)-এর ওফাতের পরও রোমান সাম্রাজ্য টিকেছিলো প্রায় আটশ বছর। এই সুদীর্ঘ সময়ে কী ঘটেছিল রোমান সাম্রাজ্যে? কারাই বা ছিল বাইজান্টাইন? কিংবা মূর্তি উপাসক রোমানরা কীভাবে দীক্ষিত হলো খ্রিস্ট ধর্মে? সেই সব বিচ্ছিন্ন বিন্দু মেলানোর চেষ্টা করা হয়েছে এই ফিচারটিতে।

টাইবার নদীর তীরে রোম শহর source: http://www.luiss.edu

read more »

March 22, 2017

পৃথিবী বিখ্যাত ক্রিকেটারদের ‘ক্রিকেটামৃত’

মূল লেখার লিংক
ব্যাটসম্যান, বোলার এবং ক্রিকেট-সংশ্লিষ্ট কতজন যে ক্রিকেট নিয়ে কত মজার মজার কথা বলেছেন তার ইয়ত্তা নেই। স্লেজিং, কাউকে হেয় অপদস্থ করা যে কত উইট দিয়ে করা যায় তা দেখিয়েছেন তারা। তেমনি কিছু ক্রিকেটামৃত–

cricket-post2

read more »

March 22, 2017

ক্ষনজন্মা এক পাখি কিংবা প্রজাপতির গল্প

মূল লেখার লিংক

বাবা পাড় মাতাল, সারাদিন আকন্ঠ মদে নিমজ্জিত থাকতেন, কে জানে সেই কারনেই কিনা জন্মেই সমস্যা ছিল পায়ে। এক পা অন্য পায়ের চেয়ে ছয় সেন্টিমিটার ছোট! সাথে বা পায়ের পাতা বাকানো। কিন্তু বিধাতা যার পায়ে যাদু ঢেলে দিবেন বলে ঠিক করেছেন তাকে আটকানোর সাধ্য আছে কি এসব বাধার? না তাকে পায়ের প্রতিবন্ধকতা আটকাতে পারেনি, আটকে গিয়েছিলেন নিজের স্বেচ্ছাচারিতার কাছেই। সে গল্প পরে হবে। আসুন এখন তার যাদুর শুরুটা কোথায় তা দেখি।

read more »

March 21, 2017

হ্যামেলিনের বাঁশিওয়ালাঃ সত্য না মিথ্যে?

মূল লেখার লিংক
ছোটবেলায় হ্যামেলিনের বাঁশিওয়ালার গল্প শুনে বা পড়ে আসেনি এমন কাউকে নিশ্চিতভাবেই পাওয়া যাবে না। তবে কোনো এক কারণে নামটা অনেক জায়গাতেই ছিল ‘হ্যামিলন’, অথচ নামটা হবে ‘হ্যামেলিন’। প্রশ্ন উঠতে পারে, এই গল্প নিয়ে হঠাৎ মেতে উঠলাম কেন? কারণ এটি নিছক গল্পই না, এর পেছনেও রয়েছে কিছু কথা; এমন কি হতে পারে না যে, হ্যামেলিনের বাঁশিওয়ালার ঘটনা আসলে অতিরঞ্জিত হলেও সত্য?

ছোটবেলায় যে গল্পটা আপনি জেনেছিলেন, সেটা আরেকবার সংক্ষেপে বলবো, তবে কাহিনীর ভাঁজে ভাঁজে যে নিখুঁত বিবরণগুলো রয়েছে সেদিকে নজর দেব আমরা।

ম্যাপে হ্যামেলিন

read more »

March 21, 2017

দশরথ মাঝিঃ বাইশ বছর ধরে পাহাড় কেটে যিনি দেখিয়েছিলেন পথের দিশা

মূল লেখার লিংক
বিহারের গেহলর গ্রামে বেশ মুখরোচক একটা সংবাদ ছড়িয়ে পড়েছে। দশরথ মাঝি নাকি একাই হাতুড়ি, শাবল নিয়ে পাহাড় কাটা শুরু করে দিয়েছেন আর কিছু জিজ্ঞেস করলেই বলছেন, “এই পাহাড় কাইটা রাস্তা বানায়াই ছাড়মু”। লোকজন দেখতে আসে, কেউ টিটকিরি দেয় “ও মাঝি! পাহাড় কাটা কতদূর?” কেউ আবার একটু করুণার দৃষ্টিতে তাকায়, আফসোসের স্বরে বলে, “আহারে বেচারা! বউটা মারা যাওয়ায় মাথাটাই গ্যাছে”।

কিন্তু কোনো দিকে ভ্রুক্ষেপ নেই দশরথের। একমনে পাথুরে পাহাড়ের গায়ে চালিয়ে যাচ্ছেন তার শাবল, হাতুড়ির আঘাত। শক্ত পাথর টলে না একচুলও, উল্টো হাতুড়ি ছিটকে এসে লাগে তার পায়ে। যন্ত্রণায় ককিয়ে উঠেন দশরথ, রক্তে লাল হয়ে উঠে পাহাড়ের গা; কিন্তু তিনি বিচ্যুত হন না তার সংকল্প থেকে, সকল যন্ত্রণা উপেক্ষা করে আবার হাতে তুলে নেন হাতুড়ি; কেননা তার হৃদয়ে যে চলছে এর চেয়েও বেশী রক্তক্ষরণ, বুক জুড়ে জমে থাকা যন্ত্রণার তুলনায় এ শারীরিক আঘাত যে ভীষণ নগণ্য।এ পাহাড় তার কাছ থেকে কেড়ে নিয়েছে তার স্ত্রী ফাল্গুনীকে। এ পাহাড়ের উপর প্রতিশোধ নেয়ার আগ পর্যন্ত তো থামবেন না তিনি।

দশরথ মাঝি; ছবিসূত্রঃ nawinnav.files.wordpress.com

read more »

March 13, 2017

সাইফুল আজম: বাংলার আকাশের এক দুঃসাহসী ‘লিভিং ঈগল’

মূল লেখার লিংক
আজ থেকে প্রায় অর্ধশতাব্দী আগের এক দিন। ১৯৬৭ সালের জুনের ৫ তারিখ। ছয় দিনব্যাপী আরব-ইসরাইল যুদ্ধ শুরু হয়েছে সেদিন। সময় তখন বেলা ১২টা বেজে ৪৮ মিনিট। চারটি ইসরাইলি জঙ্গী বিমান ধেয়ে আসছে জর্ডানের মাফরাক বিমান ঘাঁটির দিকে। কিছুক্ষণ আগেই আকাশ থেকে প্রচণ্ড আক্রমণে গোটা মিশরীয় বিমান বাহিনীর যুদ্ধ-সরঞ্জাম গুঁড়িয়ে দিয়েছে ইসরাইলি বাহিনী। এবার জর্ডানের ছোট্ট বিমান বাহিনীর উপর আক্রমণ শাণাচ্ছে ইসরাইলি বিমানগুলো।

ঠিক ঐ মুহূর্তে ইসরাইলি সুপারসনিক ‘ডাসল্ট সুপার মিস্টেরে’ জঙ্গী বিমানগুলো আরবীয় আকাশে ভয়ঙ্করতম আতঙ্কের নাম। প্রচণ্ড গতি আর বিধ্বংসী ক্ষমতা নিয়ে সেগুলো ছারখার করে দিতে পারে আকাশপথের যে কোনো বাধা কিংবা ভূমিতে অবস্থানকারী যে কোনো টার্গেটকে। তবু তাদের পথ রোধ করতে মাফরাক বিমান ঘাঁটি থেকে বুক চিতিয়ে উড়াল দিল চারটি ‘হকার হান্টার’ জঙ্গী বিমান। শক্তির দিক থেকে ইসরাইলি বিমানের কাছে সেগুলো কিছুই নয়। মুহূর্তেই উড়ে যেতে পারে এক আঘাতে, তাতেই গুঁড়িয়ে যাবে তাদের প্রতিরোধের স্বপ্ন।

কিন্তু ইতিহাস দুঃসাহসের পূজারী। শক্ত প্রতিরোধ গড়ে তুলল মাফরাকের যোদ্ধারা। জর্ডানের একটি হকার হান্টারে পাইলটের সিটে বসে আছেন অকুতোভয় এক যুবক, এই পাল্টা প্রতিরোধের প্রধান সেনানী। ঈগল পাখির নিশানা তার সুতীক্ষ্ণ দু’চোখে। আকাশপথের সম্মুখ সমরেও যার স্নায়ুচাপ অবিচল, দুধর্ষ প্রতিপক্ষের সামনে যার মনোবল ইস্পাতকঠিন। সেই হকার হান্টার থেকেই সে যুবক নির্ভুল নিশানায় ঘায়েল করলেন দুই ইসরাইলি সেনাকে। ঐ মুহূর্তে কল্পনাতীত এক কাণ্ডও ঘটালেন, অব্যর্থ আঘাতে ভূপাতিত করে ফেললেন একটি ইসরাইলি ‘সুপার মিস্টেরে’। আরেক আঘাতে প্রায় অকেজো করে দিলেন তাদের আরেকটি জঙ্গী বিমান, ধোঁয়া ছাড়তে ছাড়তে সেটি ফিরে গেল ইসরাইলি সীমানায়। চারটি হকার হান্টারের প্রতিরোধের মুখে পড়ে ব্যর্থ হলো অত্যাধুনিক ইসরাইলি বিমানগুলো।

শিল্পীর কল্পনায়, হকার হান্টার থেকে সেই পাইলট দেখছেন তার আঘাতে পড়ে যাচ্ছে ইসরাইলি সুপার মিস্টেরে বিমান। সূত্র: bangladeshdefencejournal.comshilp

read more »

March 8, 2017

বুবুর সঙ্গে সারা দুপুর

মূল লেখার লিংক

বড়বোনের সঙ্গে ঘুরে বেড়ানোর মজাই অন্যরকম। তা সে ছোট বোনের বয়স দশ হোক কী চল্লিশ! প্রবাসজীবনের সবচেয়ে বড় অভিশাপ হচ্ছে, বড়বোনদের সঙ্গে আমার কদাচিৎ দেখা হওয়া। একসঙ্গে বেড়ানোর সুযোগ তো অনেক দূরের কথা। কিন্তু আমি হলফ করে বলতে পারি, এই চর্মচক্ষুর দেখা না হওয়া আমাদের কঠিন ভালোবাসাকে এতটুকুও হালকা করতে পারে না।

read more »

March 8, 2017

শুভ জন্মদিন কিং রিচার্ডস!

মূল লেখার লিংক

১.
ক্রিকেটে ব্যাটসম্যানদের স্ট্রাইক রেট বলতে আমরা কি বুঝি? বল প্রতি কত রান করেছে তার একটা হিসেব। কোন ব্যাটসম্যানের স্ট্রাইক রেট ১০০ এর অর্থ হচ্ছে সেই ব্যাটসম্যান ১০০ বল খেলে ১০০ রান করেছেন। ব্যাটসম্যানদের গড় বলতে আমরা কি বুঝি? একজন ব্যাটসম্যান প্রতি ইনিংসে কত রান করেছেন তার একটা হিসেব।

read more »

March 5, 2017

দূরত্ব কি হতে পারে ভালোবাসার অন্তরায়?

মূল লেখার লিংক
প্রেম, স্বর্গ থেকে নেমে আসা মর্ত্যের এক বিশেষ উপহার। সবাই নিজের এই বিশেষ সম্পর্কটির কথা খুব রূপকথার মতো করে মনের মধ্যে সাজায়। কেউ কেউ মনের আঙিনায় আসন্ন সম্পর্কের ‘নীল নকশা’ও করে ফেলে। কিন্তু কেউই কখনো তাদের কল্পনায়, তাদের সেই নীল নকশায় ‘দূরত্ব’ শব্দটিকে স্থান দিতে চায় না। সবাই কাছাকাছি থাকতে চায়, দূরত্ব কারো সয় না!

সঙ্গীর জীবনে সবচেয়ে বেশি প্রাধান্য পাওয়া যেন একটি অলিখিত চুক্তির মতন। “তার সময়ের সবচেয়ে বেশি অংশ তো আমারই পাবার কথা”, এমনটিই ভাবনা অধিকাংশের। এখন এসব রূপকথার মতো ভাবনার মধ্যে যদি এসে দাঁড়ায় দূরত্ব, সময়ের সবটুকু পাবার বদলে যদি মাসে কিংবা দু’তিন মাসেও একবার দেখা না হয় প্রিয় মানুষটির সাথে, তখন কী হয়? আপনি কি যত্ন নেয়া ভুলে যাবেন? আপনি কি তার সাথে সুখ-দুঃখ ভাগ করা ছেড়ে দেবেন? ঐ বিশেষ ব্যক্তিটি কি তখন আর আপনার প্রিয়ের তালিকায় শীর্ষে থাকবেন না? আপনি কি তখন আর মন উজাড় করে ভালোবাসবেন না? অনেক প্রশ্ন এক কাতারে দাঁড়িয়ে আছে, কিন্তু উত্তরগুলো প্রশ্নের চেয়েও অনেক বেশি সহজ।

হোক না এখানে রাত ওখানে দিন, তাতে কিছু এসে যায় না!, http://www.pixastock.com

read more »

March 5, 2017

বখতিয়ার খিলজীর বাংলা বিজয়

মূল লেখার লিংক
কয়েক হাজার অক্ষরের বিন্যাসে লেখা ইতিহাসের বইটা যতটা নীরস লাগে, মূল ইতিহাস কিন্তু ততোটা রসহীন হয় না। প্রতিটি ইতিহাসের সাথে জড়িয়ে থাকে অজস্র উত্থান-পতন, রক্তপাত, দুর্বিষহ বাস্তবতা। “বখতিয়ার খিলজী ১২০৪ সালে মাত্র ১৭ জন অশ্বারোহী সেনা নিয়ে নদীয়ার রাজা লক্ষণ সেনকে পরাজিত করে বাংলা জয় করেন”- ইতিহাসের বইয়ের এই লাইনটি নিশ্চয় সবার ঝাড়া মুখস্ত রয়েছে? যদিও এর আগের বা পরের কোনো কিছুই আমাদের ঠিকমতো জানা নেই। চলুন জেনে নেয়া যাক সেই বখতিয়ার খিলজী আর তার দুর্ধর্ষ অভিযানের কথা।

শিল্পীর চোখে বখতিয়ার খিলজী : kalayi.blogspot.com

read more »