Posts tagged ‘ফ্রান্স’

November 7, 2016

বিক্ষুব্ধ অস্থির প্রতিভা

মূল লেখার লিংক
এভারিস্ত গালোয়া
এভারিস্ত গালোয়া

এভারিস্ত গালোয়া (১৮১১-৩২) এমন একটি নাম, যা বিপ্লব, অপরিণত তারুণ্য, ক্রোধ, রাজনৈতিক সক্রিয়তা, অস্থিরচিত্ততা, দুর্ভাগ্য আর অতুলনীয় প্রতিভার সঙ্গে মিশে আছে। মাত্র ২০ বছর বয়সের আয়ুষ্কালের মধ্যে গালোয়া গণিতের অন্তত তিনটি শাখায় যুগান্তকারী অবদান রেখেছিলেন।

read more »

Advertisements
August 29, 2014

গ্যালোয়ার এক রাতের কারিশমা

জীবন মানেই নিয়ত মৃত্যুর দিকে এগিয়ে যাওয়া। কেউ কেউ জীবনের পথচলায় পাড়ি দেয় বহদূর। কেউ কেউ আবার ক্ষণজন্মা। আসল জীবন শুরু হতে না হতেই মৃত্যু এসে একটানে তাকে তুলে নেয় মহাকালের অন্যপারে

read more »

March 21, 2013

ফুটবল বিবর্তনঃ ট্যাকটিকসের সৃষ্টি এবং বিলুপ্তি

মূল লেখার লিংক
একটা সময় ছিল যখন ফুটবলে “ওয়ান ম্যান শো” ব্যাপারটা হরহামেশাই দেখা যেত । ৮৬ এর ম্যারাডোনার কথাই ধরুন । রীতিমত একা হাতে (নাকি পায়ে ?) আর্জেন্টিনাকে এনে দিয়েছিলেন তাদের দ্বিতীয় বিশ্বকাপের শিরোপা । কিংবা ধরুন ৯৮ এবং ০৬ এর জিদান এর কথা । ৯৮ এ ফ্রান্সের দলটা অবশ্য খুবই ব্যালান্সড ছিল । শুরু থেকেই তারা ভালো খেলছিল । রক্ষণে লেবেউফ-দেসাইলি-ব্লাঙ্ক । মধ্যমাঠে জিদান, পেতিত , ভিয়েরা , দেশম , কারেমবেউ । আর সামনে ডিওরকায়েফ সাথে তরুন অনরি । গোলবারের নিচে বিশ্বস্ত প্রহরী ফ্যাবিয়ান বারথেজ । দুর্দান্ত ফর্মে থাকা ব্রাজিলকে রীতিমত নাকানিচুবানি খাইয়ে ফাইনালে ৩-০ গোলে জিতেছিল ফ্রান্স । যার দুই গোলই জিদানের করা । কিন্তু ০৬ এর কথা ? বিশকাপে খেলতে পারবে কিনা সে আশঙ্কাতেই অবসর ভেঙে প্রত্যাবর্তন করেন জিদান । পরেরটুকু তো ইতিহাস । কোনোমতে গ্রুপ পর্ব পেরুনো দলটিকে নিয়ে তিনি একক দক্ষতায় পার করেছেন একে একে স্পেন , পর্তুগাল , ব্রাজিল এর মত বাধা । আর ফাইনালে যদি মাতেরাজ্জিকে সেই বিখ্যাত ঢুশটি না মারতেন তাহলে হয়তো শিরোপাও পেতে পারতো ফ্রান্স ।
কিন্তু আজকাল কিন্তু এই ওয়ান ম্যান শোর দাপট কমে গিয়েছে – যদি না হিসেবটা মেসি-রোনালদোকে সহ করেন । এর কারণ কি ? কারণ হিসেবে বলা যায় ট্যাকটিকসের পরিবর্তন । একটা উদাহরন দেই । ২০০২ সালের বিশকাপ জেতা ব্রাজিলের ফরমেশন ছিলঃ ৪-৪-২ , যেটা কিনা কার্যক্ষেত্রে ২-৪-৩-১ এর মত হয়ে যেত ।

read more »

September 9, 2012

অন্যরকম ইতিহাস, |০২|, |অব্রের কুকুর|

মূল লেখার লিংক

১৩৭১ সালে ফ্রান্সে পঞ্চম চার্লসের রাজত্বকালে মন্টার্গিসে থাকতেন অব্রে ডি মন্টডিডিয়ের নামে এক সম্ভ্রান্ত ব্যক্তি। অব্রের ড্রাগন নামে এক গ্রেহাউন্ড ছিল। খুব প্রভুভক্ত ছিল ড্রাগন।

একবার অব্রের সিয়র ডি নারসাক নামের এক ফ্রেঞ্চ ক্যাপ্টেনের সাথে দেখা করার কথা ছিল। ড্রাগনকে নিয়ে অব্রে বেরিয়েও পড়লেন কিন্তু ডি নারসাকের বাড়িতে পৌঁছুলেন না। অব্রে আসছে না দেখে নারসাক নিজে চলে গেলেন অব্রের বাড়িতে। কিন্তু না! কোথাও নেই অব্রে কিংবা, তাঁর বিশ্বস্ত কুকুর ড্রাগন। অনেক খোঁজাখুঁজির পরও কোন সন্ধান পাওয়া গেল না অব্রে বা, ড্রাগনের।

read more »

March 17, 2012

পার্বত্য ফ্রান্স ও রুশোর বাগান

মূল লেখার লিংক

সমতলের পদ্মাপারের মানুষ, কষ্ট করে ঘাম ঝরাতে এসেছি পর্বতে চড়তে, ফ্রান্সের আল্পসে। চড়াই-উৎরাই ডিঙ্গানোতে সেবারের মতো ইতি টেনে অতি ক্লান্ত পেশীগুলোকে বিশ্রাম দিতে আস্তানা গেড়েছি আল্পসের কোলে প্রকৃতির মাঝে এক পাহাড়ী শহর শবেরিতে, পুরনো অভিযাত্রার সঙ্গিনী হেলেনের বাড়ীতে।

319_87873410496_608590496_4157739_5351_n

ভেবেছিলাম কদিন শুধু ধুমসে গড়াগড়ি করে শরীরের বিশ্রামকে পুরোমাত্রায় পুষিয়ে নেব কিন্তু হেলেনের পাল্লায় পড়ে তা আর হচ্ছে কোথায়! একেক দিন একেক দর্শনীয় জায়গায় যেতে হচ্ছে পা টেনে টেনে, কখনো পাহাড় ডিঙ্গিয়ে সাইকেলে।

read more »

November 22, 2010

ব্রোকেন হার্ট তরুণ, ফরাসী তরুণীদ্বয় এবং হা র্টব্রেকার

মূল লেখার লিংক
একদিনের ঘটনা, হঠাৎ মুভি দেখার ইচ্ছে জাগলো। ব্যাপারটা এমন না যে কালে-ভাদ্রে মুভি দেখি। আগে মাসে কম করে হলেও ২০টা মুভি সিনেমায় গিয়ে দেখা হতো। এখনও সংখ্যাটা দশের মধ্যে আছে। তবে মাঝে কিছুদিন দশ-বছরের-প্রেমিকা-কর্তৃক-ছ্যাক-প্রাপ্ত হইয়া মুভি দেখাই বন্ধ করে দিয়েছিলাম। তারপর মনে হলো আবার মুভি দেখা শুরু করবো। কী আছে জীবনে? ভগ্ন হৃদয় নিয়ে মুখ থুবড়ে ঘরে পড়ে থাকার কোন মানে হয় না। অতঃপর আবার সিনেমামুখী হওয়া।

read more »

September 28, 2010

জিদানের দেশে সংক্ষিপ্ত সফর (পর্ব-৩): ভিসার আবেদন ও প্যারিস যাত্রা

আমাদের দুটি গবেষণা কর্ম প্রকাশের কথা জানতে পারলাম ৭ মে ২০১০ তারিখে। আমি একটির মূল লেখক (first-author) ও অন্যটির সহকারী লেখক (co-author), মূল লেখক আমার এক সহকর্মী। সহকর্মীর ভিসা নিয়ে সমস্যা থাকার কারনে সিদ্ধান্ত হলো আমি একাই কাজ দুটি প্রেজেন্ট করার জন্য প্যারিস যাবো। সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে ফ্রান্সের ম্যাপিং এজেন্সীতে ১-৩ সেপ্টেম্বর ২০১০ তারিখে। এই সংস্হাটি প্যারিস শহরের কেন্দ্রস্হল থেকে অনতিদূরে Saint-Mandé তে অবস্হিত। ট্রেনে যেতে মুটামুটি আধ ঘন্টা সময় লাগে।

read more »

September 28, 2010

জিদানের দেশে সংক্ষিপ্ত সফর (পর্ব – ২): ফ্রান্স

পর্ব – ২: ফ্রান্স
ফ্রান্স (French: République française) পশ্চিম ইউরোপের একটি শক্তিশালী দেশ। আয়তন ৫৫১,৬৭০ বর্গকিমি। প্রত্নতাত্বিক নিদর্শন থেকে বলা হয় ৪০,০০০ বছর আগে ফ্রান্সে মানুষ বসবাস শুরু করে। মূল ভুখন্ডের বাইরে ভারত, আটলান্টিক ও প্রশান্ত মহাসাগরে এর কয়েকটি দ্বীপ আছে। ইউরোপে এর চার পাশে বেলজিয়াম, লুক্সেমবার্গ, জার্মানী, সুইজারল্যান্ড, ইটালী, মোনাকো, স্পেন ও অন্দোরা অবস্হিত। এছাড়া ইংলিশ চ্যানেলের মাধ্যমে ফ্রান্স ইংল্যান্ডের সাথে যুক্ত।

read more »

September 28, 2010

জিদানের দেশে সংক্ষিপ্ত সফর (পর্ব – ১): জিনেদিন জিদান

সেপ্টেম্বের ২০১০ এর শুরুতে প্যারিসে একটি আন্তর্জাতিক বিজ্ঞান সম্মেলনে যোগ দিতে প্যারিস গিয়েছিলাম। ৪ দিনের সংক্ষিপ্ত সফরের বেশিরভাগ সময় সম্মেলনে হাজির থাকলেও শেষদিন সম্মলেন দূপুরে লাঞ্চের আগেই শেষ হয়ে যায়। ফিরতি ফ্লাইট ছিল পরের দিন দূপুরে। ফলে সম্মলেন শেষের দিন বিকেল থেকে মধ্যরাত্র পর্যন্ত সময় পেলাম ফুটবল মেকার জিদান ও আইফেল টাউয়ারের দেশ ফ্রান্সের রাজধানী প্যারিসের কিছু জায়গা ঘুরেফিরে দেখার। সঙ্গে ছিল, জিদানের মতো আলজেরিয়ান বংশোদ্ভুত ফ্রান্সের নাগরিক বন্ধু করিম হামৌদি। করিমের সাথে পরিচয় সম্মেলনের মাত্র কয়েকদিন আগে। তিনি বয়সে আমার চেয়ে তরুণ ও অত্যন্ত ভদ্র। আমার নতুন এই বন্ধুটি সম্পর্কে পরে ভ্রমন কাহিনীতে বিস্তারিত লিখার আশা রইল।

read more »