Posts tagged ‘কৌশল’

June 10, 2017

কুখ্যাত বডিলাইন সিরিজ এবং এক হতভাগ্য লারউডের গল্প

মূল লেখার লিংক
ক্রিকেটকে জেন্টলম্যান স্পোর্টস হিসেবে বলা হয়ে থাকে। কিন্তু সেই স্পিরিটকে ধুলিস্যাৎ করে দিয়েছিল বডিলাইন সিরিজ। ক্রিকেটের ইতিহাসে যাকে কালো অধ্যায় হিসেবে অভিহিত করা হয়। ১৯৩২- ৩৩ সালে অষ্ট্রেলিয়ার মাটিতে ইংল্যান্ড-অস্ট্রেলিয়ার অনুষ্ঠিত অ্যাশেজ সিরিজ ‘বডিলাইন সিরিজ’ হিসেবে ব্যাপক পরিচিতি লাভ করে। আর ইংলিশ বোলার লারউড ছিলেন সেই সিরিজের কলঙ্কিত এক নাম। কী হয়েছিল সেই সিরিজে? কেনই বা একে বডিলাইন সিরিজ বলা হচ্ছে? লারউড, আসলেই কি দোষী? নাকি সে ছিল ক্রিকেট রাজনীতির শিকার? তেমনি এক অনুসন্ধানের চেষ্টা আজকের এই লেখায়।

read more »

Advertisements
December 12, 2013

চুরি বিদ্যা মহাবিদ্যা যদি না পড়ো ধরা !

মূল লেখার লিংক
এখনকার সিসিটিভি আর ডিএনএ শনাক্তের যুগে চুরি কিংবা ডাকাতি করে সফল হওয়াটা মোটামুটি অসম্ভব । কেননা হলিউডি মুভির রঙ- চঙ্গে আর চোখ ধাঁধানো সব অ্যাকশানে সবাই মোটামুটি চোখ বুজেই রেখেছেন এই ভেবে যে এটা ছবিতেই সম্ভব। কিন্তু বাস্তবের জগতে সিনেমাকে হার মানানো চোরও আছেন, যারা প্রতিরক্ষা কিংবা প্রযুক্তিকে বুড়ো আঙ্গুল দেখিয়ে হাতিয়ে নিয়েছেন মিলিয়ন মিলিয়ন ডলার!! এমন কিছু চুরির গল্পই শোনাবো আজ…

১। ফ্রেঞ্চ ‘ভ্যাকুয়াম গ্যাং’

সবচেয়ে চমকপ্রদ লেগেছে এদের আইডিয়াটা। ২০০৬ সালের দিকের কাহিনী, অপরিচিত এই দলটা সাধারণ ড্রিল আর মডিফাইড ভ্যাকুয়াম ছাড়া আর তেমন কিছুই ব্যবহার করেনি। Monoprix নামের ফ্রান্সের একটি সুপারমার্কেটের ক্যাশ জমা রাখার সিস্টেমের একটা দুর্বলতা খুঁজে পায় এরা । সেখানে ক্যাশের খামগুলো সেকশন টিউব দিয়ে সেফটি বক্সে যেতো, আর তাই তারা সেই পথের মাঝেই একটা শক্তিশালী ভ্যাকুয়াম টিউব বসালো যা খামগুলোকে টেনে আনবে!!

এই সিস্টেমটা পুরোই ইউনিক ছিল কেননা সাধারণত বেশিরভাগ সময়ই সবাই প্লাজমা কাটার কিংবা থার্মাল লেন্স ব্যবহার করত, যা দিয়ে পরবর্তীতে ধরা পড়বার একটা চান্স থাকতো। কিন্তু এক্ষেত্রে কোন সুত্র ছাড়াই তারা ১৫ রাত ধরে সর্বমোট ৮,০০,০০০ ডলার চুরি করতে সক্ষম হয়েছিল !!!

read more »