Archive for ‘রকমারি’

July 30, 2017

মানসিকভাবে শক্তিশালী মানুষ যে দশটি কাজ অবশ্যই করবে না

মূল লেখার লিংক
আমরা প্রতিনিয়তই শক্তিশালী এবং সুস্থ দেহ প্রত্যাশা করি। কর্মক্ষম থাকার জন্য শারীরিক কসরত করি। শরীরের পর্যাপ্ত পুষ্টির প্রয়োজনে ভালো খাবার খাই এবং শরীরের প্রয়োজনেই আবার অনেক কিছু এড়িয়েও চলি। কিন্তু শারীরিক শক্তিমত্তার সাথে সাথে মানসিক সুস্থতা, মানসিকভাবে শক্তিশালী হওয়ার জন্য করণীয় কাজগুলো আমাদের করা হয়ে ওঠে না। আমাদের সফলতা, সুখী থাকা, জীবনটাকে স্বাভাবিকভাবে এগিয়ে নিয়ে চলার পুরো ব্যাপারটি যে মানসিক শক্তিমত্তার উপর নির্ভর করে, সে ব্যাপারে আমদের কোনো ধারণাই নেই।

read more »

Advertisements
April 18, 2017

দিয়াতলোভ গিরিপথে মৃত্যু: অর্ধশতাব্দীর অমীমাংসিত রহস্য

মূল লেখার লিংক
প্রচণ্ড তুষারপাত হচ্ছে, সাথে হাঁড় কাপানো শীতল বাতাস। ‘মৃতদের পাহাড়’ নামে পরিচিত এক পর্বতের ঢালে তাঁবু গেড়েছে নয় অভিযাত্রী। গা ছমছম করা চারিদিক, রাতের আঁধারে অশুভ আতঙ্কের ফিসফিসানি। হঠাৎ তাঁবু ছিঁড়ে সজোরে বেরিয়ে পড়লো অভিযাত্রীরা। মৃত্যু তাড়া করেছে তাদের। প্রচণ্ড ঠাণ্ডায় গরম কাপড় ছাড়াই খালি পায়ে দৌঁড়াতে শুরু করল রুদ্ধশ্বাসে। মরণ ঠেকানোর সমস্ত চেষ্টা ব্যর্থ হলো। কারো মৃত্যু হলো ঠাণ্ডায় জমে গিয়ে, কারো বুকের পাঁজর ভেঙে গুঁড়িয়ে, কারো মাথার খুলি ফেটে গিয়ে।

আজ থেকে প্রায় ছয় দশক আগে, রাশিয়ার বরফঘেরা ‘ডেড মাউন্টেন’ পর্বতের কাছেই ঘটেছিল এমন এক নির্মম ঘটনা। সময়টা ছিল ১৯৫৯ সালের জানুয়ারি মাসের শেষের দিকে। কোনো এক রাতে নয় জন অভিযাত্রীর একটি দল সে পর্বতের ঢালে তাঁবু গেড়েছিল দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ার কবলে পড়ে। দলের সবাই ছিল দক্ষ পর্বতারোহী। কিন্তু প্রত্যকের ভাগ্যেই সে রাতে ভয়ঙ্কর এক নিয়তি নির্ধারিত ছিল, তা হলো রহস্যময় ও ভয়ঙ্কর মৃত্যু। আজ পর্যন্ত কিনারা হয়নি সে রহস্যের। সেই পর্বতের যে গিরিপথ ধরে অভিযাত্রীরা এগিয়ে গিয়েছিল মৃত্যুর দিকে, দলনেতা ইগর দিয়াতলোভের নামানুসারে সেটার নাম দেয়া হয়েছে ‘দিয়াতলোভ পাস’ বা ‘দিয়াতলোভ গিরিপথ’।

রাশিয়ার তৎকালীন স্ফের্দোলোভস্ক শহর থেকে এই অভিযাত্রিকেরা বেরিয়ে পড়েছিল উরাল পর্বতমালার উদ্দেশ্যে। বরফের মাঝে অভিযানের জন্য স্কি করার সাজ-সরঞ্জামসহ যাবতীয় প্রস্তুতি নিয়েই বেরিয়েছিল তারা। মোট দশ জনের এই দলে ছিল দুজন নারী আর আটজন পুরুষ। তাদের মধ্যে তিনজন ছিল প্রকৌশলী আর বাকি সাতজন শিক্ষার্থী। সবারই পড়াশোনা তৎকালীন উরাল পলিটেকনিক ইন্সটিটিউটে, আজকে যেটা উরাল ফেডারেল ইউনিভার্সিটি নামে পরিচিত।

দশ অভিযাত্রী। ছবি সূত্র: dyatlov-pass.com

read more »

March 21, 2017

হ্যামেলিনের বাঁশিওয়ালাঃ সত্য না মিথ্যে?

মূল লেখার লিংক
ছোটবেলায় হ্যামেলিনের বাঁশিওয়ালার গল্প শুনে বা পড়ে আসেনি এমন কাউকে নিশ্চিতভাবেই পাওয়া যাবে না। তবে কোনো এক কারণে নামটা অনেক জায়গাতেই ছিল ‘হ্যামিলন’, অথচ নামটা হবে ‘হ্যামেলিন’। প্রশ্ন উঠতে পারে, এই গল্প নিয়ে হঠাৎ মেতে উঠলাম কেন? কারণ এটি নিছক গল্পই না, এর পেছনেও রয়েছে কিছু কথা; এমন কি হতে পারে না যে, হ্যামেলিনের বাঁশিওয়ালার ঘটনা আসলে অতিরঞ্জিত হলেও সত্য?

ছোটবেলায় যে গল্পটা আপনি জেনেছিলেন, সেটা আরেকবার সংক্ষেপে বলবো, তবে কাহিনীর ভাঁজে ভাঁজে যে নিখুঁত বিবরণগুলো রয়েছে সেদিকে নজর দেব আমরা।

ম্যাপে হ্যামেলিন

read more »

February 22, 2017

চেতন ভগতের সাড়া জাগানো যত উপন্যাস

মূল লেখার লিংক
ভারতের নবীন লেখকদের মধ্যে অন্যতম একজন তিনি, খুব দ্রুতই তার লেখা বইগুলো বেস্ট সেলার উপাধি পেয়ে যায়। কেন? তার সহজ ইংরেজিতে তরতর করে এগিয়ে যাওয়া গল্পগুলোর জন্য। বলছি চেতন ভগতের কথা, দ্য নিউইয়র্ক টাইমস যাকে বলেছে ভারতের ইতিহাসে সবচেয়ে বেশি বিক্রীত ইংরেজি উপন্যাসের রচয়িতা। টাইম ম্যাগাজিনের মতে তিনি বিশ্বের শীর্ষ ১০০ প্রভাবশালী ব্যক্তির মধ্যে একজন। তার খ্যাতির কৃতিত্ব সবচেয়ে বেশি যে ক্ষেত্রকে দেয়া যায়, তা হলো তার উপন্যাসগুলো, যা থেকে অধিকাংশই চলচ্চিত্রের পর্দায়ও দেখা গিয়েছে। আজ সেগুলোর সম্পর্কেই কিছুটা জানতে যাচ্ছি আমরা।
ফাইভ পয়েন্ট সামওয়ান (২০০৪)

ফাইভ পয়েন্ট সামওয়ান, quotesaga.com

read more »

February 12, 2017

যে ১১টি বই এবার বইমেলা কাঁপাচ্ছে

মূল লেখার লিংক

earki_boimela_book (6)

প্রতিবারের মতো এবারের বইমেলাতেও প্রতিদিন প্রকাশিত হচ্ছে শতশত বই। কিন্তু শতশত বইয়ের সবগুলো তো সবার পক্ষে কেনা সম্ভব না। আবার বইমেলায় গিয়ে খালি হাতে ফিরে আসারও উচিত হবে না। স্টলের সামনে দাঁড়িয়ে বেছে বেছে যে একটা একটা করে বই কিনবেন সেটাও প্রায় অসম্ভব। তাহলে কিনবেন কী? আপনার সমস্যা সমাধানে এগিয়ে এসেছে eআরকি। বইমেলায় যান, এবারের বইমেলা কাঁপাচ্ছে এই যে বইগুলো তা নিয়ে খুশিমনে বাড়ি ফিরুন।

read more »

February 12, 2017

বইয়ের রাজ্যে এ যেন এক অন্য জগতঃ বার্নস এন্ড নোবেল

মূল লেখার লিংক
‘বই’- আজকাল শব্দটি খুব যেন পাঠ্যপুস্তক ঘেঁষা হয়ে গেছে। ইন্টারনেট আর ভিডিও গেমস্ এর বদৌলতে পাঠ্যপুস্তকের বাইরের বই এখন ধরাছোঁয়ার বাইরে চলে গিয়েছে। কারও মাঝে এখন সময়ই বা কোথায় হাত পা ছড়িয়ে বই নিয়ে বসার? এর চাইতে বরং ফেসবুকে স্ট্যাটাস আপডেট করা বা কমেন্টগুলো পড়া আরও বেশি জরুরি।

বলাই বাহুল্য, বর্তমান সমাজে চলতে গেল এই সবকিছুর প্রয়োজন প্রশ্নাতীত। তথাপি আমরা অনুকরণ অনুরাগীও তো কম নয়। সমাজের চাল বলে কথা, বেচাল হলে হয় কীভাবে? তাই ভাসিয়ে দাও নোঙর, দাঁড় ঐ মাঝিই বয়ে নিয়ে যাবে, সে যেদিকেই যাক না কেন! এ সবকিছু একটু অভিমানের কথা বটে, তবে এই অভিমান শুধু আমাদের নয়, সকল সুস্থমনা সাহিত্য, শিল্প-অনুরাগীদের। নতুনের স্রোতে গা ভাসিয়ে দিতে আমরা বড্ড বেশি ব্যস্ত। পিছে ফিরে তাকাবার সময় তো নেই। অথচ অবাক হলেও সত্য যে, পাশ্চাত্যে এখনও বই পড়া লোকের কমতি নেই বললেই চলে। ট্রেনে, বাসে বা যেকোনো যানবাহনে হাতে তাদের বই দেখা খুব একটা অবাক করা বিষয় নয়। অথচ আমাদের দেশে বই হাতে কাউকে দেখলেই সে আঁতেল শ্রেণীর জীব হতে বাধ্য।

ট্রেনে পড়ুয়ারত কিছু লোক

read more »

February 9, 2017

নিমন্ত্রণে যাবো!

মূল লেখার লিংক
আমরা সামাজিক জীব, রবিনসন ক্রুশো নই, তাই আমাদেরকে নানা প্রকার সামাজিকতা করতে হয়। বাঙালীর সামাজিকতার বড় অংশ সামনাসামনি বা ফোনে কুশলাদি জিজ্ঞেস করার সাথে অন্য দশজনের নামে কূটকচালি করা, এবং নিমন্ত্রণের নামে ঐ প্রকার কূটকচালি সহযোগে ভুড়িভোজে সীমাবদ্ধ। উভয় প্রকার সামাজিকতায় কূটকচালির সাথে প্রায়ই ফুটানি দেখানো যুক্ত হয়। অবশ্য কিছু কিছু নিমন্ত্রণ বিশুদ্ধ ফুটানি দেখানোর উদ্দেশ্যে হয়ে থাকে। সামাজিকতার প্যাঁচে প্রায়ই এইসব ফুটানি সহ্য করতে হয়। ধারণা করি পাঠিকা-পাঠকের বৃহদাংশকেও অমন ফুটানি সহ্য করতে হয়।

read more »

December 24, 2016

বিরিয়ানির যত কথা – উৎপত্তি ও ইতিহাস

মূল লেখার লিংক
বিরিয়ানি পছন্দ করেনা এমন মানুষ ক’জন আছে বলুন? পুরনো ঢাকার কাচ্চি কিংবা তেহারীর নাম শুনেছেন অথচ জিভে জল চলে আসেনি এমন মানুষ খুঁজে পাওয়া দায়। এই চিত্র যে শুধু আমাদের দেশে তা কিন্তু নয়। গোটা ভারতবর্ষের প্রতিটি আনাচে কানাচে সেই চারশ বছর আগের মুঘল আমল থেকে আজ অবধি এতটুকুও কমেনি বিরিয়ানির আবেদন। তাই বিখ্যাত রম্যসাহিত্যিক সৈয়দ মুজতবা আলীর ভাষায় বলতে হয় “একি ভানুমতি! একি ইন্দ্রজাল”। হাজারো ভাষা, বর্ণ, গোত্র, জাতি ও ধর্মে বিভক্ত ভূ ভারতবাসীকে এক টেবিলে বসাতে পারে বোধ হয় দুটি জিনিস। তার মধ্যে একটি হল ক্রিকেট আর অন্যটি বোধহয় বিরিয়ানি। এই ঐন্দ্রজালিক বিরিয়ানির জানা অজানা নানা দিক নিয়ে সাজানো হয়েছে আমাদের আজকের এই প্রতিবেদনটি।

মুখোরোচক বিরিয়ানি কে না ভালবাসে? Source: food.ndtv.com

read more »

December 18, 2016

রেড লিফ জর্দায় গড়া সাঁকো

মূল লেখার লিংক
কাঁঠাল বাগান ঢাল থেকে সিএনজি নেবো বলে দাঁড়িয়ে আছি। গন্তব্য বনানী; কামাল আতাতুর্ক এভিনিউ। এখন সকাল আটটা পঁচিশ। শহুর জীবনরে ব্যাস্ততা এখন তুঙ্গে। সবাই ছুটছে। এমনকি ভাড়া নিয়ে দরাদরির সাহস বা সময়ও কারো নেই। বেশি দরাদরি করতে গিয়ে কেউ বাহন খোঁয়ানোর ঝুঁকি নিতে চায় না। তাই, দু’য়েক কথা বলার পরই অফিসগামীরা লাফ দিয়ে উঠে যায় রিকশায়।

এমন রাশ আওয়ারে সিএনজি পাওয়া একটা বিরাট ব্যাপার। তার উপরে যৌক্তিক ভাড়ায় বনানী যেতে রাজী হওয়ার মতন সিএনজি ড্রাইভার পেতে ৩০ মিনিট থেকে ৪০ মিনিট সময় হাতে ধরে রাখতে হয়। কিন্তু মাতা ধরিত্রীর লীলা বলে কথা! তার ইচ্ছায় আজ আমার ৬ মিনিটের বেশি অপেক্ষা করতে হলো না। এমনকি একের অধিক অন্য কোনো সিএনজিওলাকেও জিজ্ঞেস করতে হলো না।

read more »

November 22, 2016

বিদেশ ভালো: বাঙালি মাছের পদ্যে জার্মানি গদ্যময়

মূল লেখার লিংক

‘মীনাক্ষোভাকুল কুবলয়’- মানে ‘মাছের তাড়ণে যে পদ্ম কাঁপিতেছে’।

এটা লিখেছিলাম আগে। এবার লিখলাম ‘মীনাক্ষোভাকুল জার্মানালয়’ অর্থাৎ ‘মাছের তাড়নে জার্মান কাঁপছে’।

এবারের লেখায় শুধু আদা-রসুন-পেঁয়াজের গন্ধ। গন্ধ ভালো না লাগলে নাক চেপে ধরে পড়তে পারেন।

read more »

October 25, 2016

আইজাক আসিমভ- সাইন্স ফিকশন গল্পে বিপ্লব ঘটালেন যিনি

মূল লেখার লিংক

আইজাক আসিমভ
বৈজ্ঞানিক কল্পকাহিনীর প্রতি আপনাদের আগ্রহ আছে? মুহম্মদ জাফর ইকবালের শিশুতোষ ও কিশোর সাইন্স ফিকশন গল্পগুলো পড়ে আমাদের অনেকের ছেলেবেলা কেটেছে। কেটেছে বলি-ই বা কেমন করে? এখনো প্রতি বছর বইমেলা এলে জাফর ইকবালের সাইন্স ফিকশন সবাই সমান আগ্রহ নিয়ে কিনে থাকে। তবে আজ জাফর ইকবালের কথা বলছি না।

read more »

October 2, 2016

বাংলাদেশ ক্রিকেটের ‘দুঃসময়ের ভরসা’

মূল লেখার লিংক

মাশরাফি বিন মুর্তজার কাছে ‘বাবু ভাই’ আপন বড় ভাইয়ের মতো। হাবিবুল বাশারের মতে মানুষটি আবার বাংলাদেশ ক্রিকেটের নি:স্বার্থ সহচর, সত্যিকারের সুহৃদ। কখনও পরিচয় না হওয়া দলের নবীন ক্রিকেটারও তাকে ভাবেন আপন কেউ। নেই কোনো পদ-পদবী বা আনুষ্ঠানিক দায়িত্ব। অফিসিয়ালি ক্রিকেটের কেউ নন, তবু একরাম বাবু বাংলাদেশ ক্রিকেটের ঘনিষ্ঠ একজন!

read more »

September 21, 2016

আবাহনী-মোহামেডানের ‘সন্ধি’ হয়েছিল যেদিন

মূল লেখার লিংক
আবাহনী-মোহামেডানের সন্ধির ইতিহাস গড়েছিলেন সে সময়ের দুই অধিনায়ক রনজিত সাহা ও শেখ আসলাম। ছবি: সংগৃহীত
আবাহনী-মোহামেডান নাম নিতেই একটা যুদ্ধংদেহী দৃশ্যপট চোখের সামনে ভেসে ওঠে। এখন হয়তো এই লড়াই রং হারিয়েছে, কিন্তু ৩০ বছর আগে ব্যাপারটা তো ছিল এমনই। কাঁটাতারের বেড়া দিয়ে গ্যালারিতে বিভক্ত হয়ে থাকা দুই দলের সমর্থককুলেও তো সে সময় যুদ্ধ-যুদ্ধ ভাবটা দেখা যেত। কিন্তু যুদ্ধের ময়দানে দাঁড়িয়েই দুই দলের সৈনিকদের ‘সন্ধি’—ব্যাপারটা একটু কেমন শোনায় না!

read more »

September 17, 2016

যেখানেই থাকি, রংপুর জিলা স্কুলেই আছি

মূল লেখার লিংক
রংপুর জিলা স্কুল
রংপুর জিলা স্কুল মানে সবুজ জোড়া মাঠ। তার যেন কোনো আদি নেই, অন্ত নেই। সেই মাঠ দুটোর মধ্যখানে পিচঢালা রাস্তা। তারপর দুটো বটগাছ। তারপর সেই খিলান শোভিত চুন-সুরকির ভবন। আমাদের সময়ে, ১৯৮০ সাল পর্যন্ত তা-ই ছিল। তারপর সেটা সংস্কার করা হয়। কড়ি-বর্গা শোভিত ছাদের বদলে আসে কংক্রিট। সেই হলরুমটা কি এখনো আছে? সেই খাঁজকাটা দরজা, জানালার বিশাল কবাট। আমাদের হলরুমের দরজাটাকে সিংহদরজাই বলা উচিত।

read more »

August 27, 2016

কিছু কালজয়ী ফটোগ্রাফি ও ছোট্ট করে বাহাইন্ড দ্য সিন

মূল লেখার লিংক
পৃথিবীতে কিছু কাল-পুরষ্কার-সমালোচক হৃদয়জয়ী ছবি নিয়ে এই ব্লগ। ছবি গুলো এবং তার পেছনের ছোট্ট গল্প সব ই নেট থেকে সংগ্রহ করা, ব্যাপারগুলো আপনার কিওরিসিটি জাগাতে বাধ্য! আপনাদের নিরাশ করবো না, কথা দিচ্ছি।

তো আমরা শুরু করি-

ষাটের দশকের মধ্যভাগ পর্যন্ত পৃথিবীতে অনেক জায়গায় আফ্রিকার কালো মানুষ দের মানুষ হিসেবে গণ্য করা হত না। তাদের কে চিড়িয়াখানার আকর্ষণ হিসেবেও রাখা হত! সত্য বড় নির্মম, তাদের কে তখনো কিটপতংগ এবং শৈবাল হিসেবে ট্রিট করা হত! তাদের হত্যা করা কোন অপরাধ ছিল না!

read more »