আসুন জেনে নেই প্রিয় কিছু মুভির পেছনের মজার কিছু তথ্য


ফরেস্ট গাম্প :
-টম হ্যাংকসের ছোট ভাই জিম হ্যাংস মুভিটিতে টমের পরিবর্তে বিভিন্ন জায়গায় অভিনয় করেছে। যেমন- দৌডানের সময় দাডিওয়লা লোক টি আসলে জিম হ্যাংস।

-টম হ্যাংস ইনফ্লুয়েন্জাতে ভুগছিলেন যখন দৌডানোর দৃশ্যগুলো ধারন করা হয়।

-মুভিটিতে একসময় লেফট. ড্যান(গ্যারি সিনস) ফরেস্ট গাম্প কে বলেছিল যেদিন ফরেস্ট স্রিম্প বোটের ক্যাপ্টেন হবে সেদিন লেফট. ড্যান(গ্যারি সিনস) নভোচারি হবে। একই সূএে বলা যায়, এপোলো ১৩ ছবিতে টম হ্যাংস অভিযানের ক্যাপ্টেন থাকে আর লেফট. ড্যান (গ্যারি সিনস) একই অভিযানের একজন নভোচারি থাকে।

-পরিচালক যখন টম হ্যাংসের কাছে স্কিপট নিয়ে যান তখন একবার পডেই টম হ্যাংস রাজী হয়েছিলেন। শুধু একটি শর্ত দিয়েছিলেন। মুভিটিতে যতগুলো ঐতিহাসিক ঘটনা দেখানো হয়েছে তা প্রকৃত সত্যি হতে হবে।

-ওয়াশিংটনে যখন ফরেস্ট গাম্প একটি সমাবেশে তার ভিয়েটনামের দিন সম্পর্কে বলেছিল তখন একজন মাইক্রোফোনের তার খুলে দেয়। সেখানে আমরা কিছু শুনতে পাই না। দেখুন আসলে সে কি বলেছিল –
“Sometimes when people go to Vietnam, they go home to their mommas without any legs. Sometimes they don’t go home at all. That’s a bad thing. That’s all I have to say about that.”

– বাসের মাঝে লালচুল ওয়ালা ছোট মেয়েটি ছিল সে আসলে টম হ্যাংসের মেয়ে এলিজাবেথ হ্যাংস।

ম্যান অন ফায়ার :

-রবার্ট ডি নিরো , টম ক্লুজ , ব্রুস উইলস, উইল স্মিথ কে মুভিটি করার জন্য পরিচালক টনি স্কট অফার করেছিলেন। কিন্তু সবাই তাকে ফিরিয়ে দেন। পরে অভিনয় করেন ওয়াশিংটন ডেনজেল।

-ডিকোটা ফানিং মানে ছোট মেয়েটা অভিনয় করতে গিয়ে তার দাত হারিয়েছিল ।প্রথমে চিন্তা করা হয়েছিল যে নকল দাত ব্যাবহার করা হবে। কিন্তু পরিচালক পরে নকল দাত ছাডাই অভিনয় করার সিদ্ধান্ত নেন।

– দুইটি সেক্স সিন ধারন করা হয়েছিল । কিন্তু পরে তা কেটে ফেলা হয়েছে। একটি ছিল ক্রেসি(ডেনজেল) আর লিসার মঝে, অন্যটি লিসা আর তার হাজব্যান্ডের মাঝে।

– কিডনাপার “ড্যানিয়েল” এবং তার ভাই “অরিলিও” নামক আসলেই দুইজন কিডনাপার ছিল ম্যাক্সিকোতে। যারা ৯০ এর দশকে অনেক কিডনাপিং এর সাথে জডিত ছিল । পরে তারা সত্যি নিহত হয়।

– ছোট মেয়েটির মা রাধা মিচেল (লিসা)যখন মেক্সিকোতে অভিনয় করতে যান তখন তাকে সেফ রাখার জন্য তিন জন বডিগার্ড ছিল। কেননা মেক্সিকোতে ঢোকার পর পরই তার গাডি চালক বন্দুক ধারীদের গুলিতে নিহত হয়েছিল ।

সসান্ক রিডেম্পসন :

– (এন্ডি ডুফ্রেন্স ) চরিএটি করার কথা ছিল টম হ্যাংস এর। কিন্তু তিনি ফরেস্ট গাম্প নিয়ে ব্যস্ত থাকায় মুভিটি করা হয় নি। পরে অভিনয় করেন টিম রবিন্স।

-মুভিটিতে দেখা যায় এন্ডি তার খাবারে একটি পোকা জাতীয় প্রানী পায় এবং সেটি ব্রুকসের কাক কে খেতে দেয়। বিষয়টি সুটিংকরার সময় আমেরিকার হিউম্যান অরগানাজেসন কাছ থেকে মনিটর করে। আমরা কাক কে যেটি খাওয়াতে দেখি তা ছিল আসলে মৃত।

-উপন্যাসটির অরিজিনাল কপিতে রেড চরিএটি (মর্গান ফ্রীম্যান) কে বর্ননা করা হয় সাদা চামডার আইরিশ ম্যান হিসেবে। কিন্তু আমরা মুভিতে রেডকে একজন কাল চামডার লোককে অভিনয় করতে দেখি।

-রিটা হাওয়ার্থের যে মুভিটি প্রিজনার রা দেখতে ছিল তার নাম হল “Gilda”

-প্যারোল পেপার এ আমরা যে তরুন মরগান ফ্রীম্যান এর এটাচ করা ছবি দেখতে পাই তা আসলে মরগান ফ্রীম্যান এর ছোট ছেলের।

-Tommy Williams(যাকে গুলি করে হত্যা করেছিল জেলখানার গার্ড) চরিএটি করার কথা ছিল ব্রাড পিট এর।

-জেলখানার “ক্যাপ্টেন হ্যাডলি” ঠিক “ক্যাপ্টেন হ্যাডলি” নামেই অভিনয় করেছেন “দ্যা গার্ডিয়ান ” মুভিটিতে।

-Clint Eastwood, Harrison Ford, Paul Newman এবং Robert Redford কে প্রস্তাব করা হয়েছিল মর্গান ফ্রীম্যানের বিকল্প হিসেবে।


সেভিং প্রাইভেট রায়ান :

– টম হ্যাংস এর স্কোয়াডের আপহাম (দোভাষী) কে স্যালুট করতে নিষেধ করা হয়। কেননা ক্যাপ্টেন(টম হ্যাংস) কে স্যালুট করলে জার্মান স্নাইপারদের টার্গেটে পরিনত হতে পারে টম হ্যাংস।
ঠিক এরকম একটা কারনে “ফরেস্ট গাম্প” মুভিতে টম হ্যাংসকেই তার ল্যাফটেনেন্টকে স্যালুট করতে নিষেধ করা হয়।

-মুভির শুরুতে যে যুদ্ধ দেখানো হয়েছে সেখানে যেসব আর্মস নিয়ে সোলজাররা বোট থেকে পানিতে নেমেছে সেগুলো ছিল কাঠের । অরিজিনাল আর্মস নিয়ে পানিতে ভেসে থাকতে অভিনেতাদের সমস্যা হওয়ায় এ ব্যাবস্হা নেয়া হয়।

-ম্যাট ডেমনের চরিএটি (প্রাইভেট জেমস ফ্রান্সিস রায়ান )করার কথা ছিল এডওয়ার্ড নরটন এর। কিন্তু তিনি এটি ফিরিয়ে দেন । এর পর ম্যাট ডেমনই মুভিটিতে অভিনয় করেন।

– এটিই শেষ মুভি যেটা নন ডিজিটাল ভাবে এডিটিং শেষ করা হয়েছিল এবং একাডেমি এওয়ার্ডে এডিটিং এ শ্রেষ্ঠ হয়েছিল।

-ব্যান্ড অফ ব্রাদার্স সিরিয়ালটিতেও” ১০১ এয়ারবোর্ন ইউনিট, ইজি কোম্পনানির ” মিশনের কথা বর্ননা দেয় একজন সার্জেন্ট। সেখানেও একজন ভাই হারা সোলজারের কথা বলা হয়েছে।

http://www.somewhereinblog.net/blog/mustain2000/29445902

লেখাটির ব্যাপারে আপনার মন্তব্য এখানে জানাতে পারেন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s

%d bloggers like this: