ঢাকার পুরাকীর্তিঃ স্যর চার্লস ডি’ওয়লি

স্যর চার্লস ডি’ওয়লির ‘ঢাকার পুরাকীর্তি’ ঢাকার ইতিহাসের এক অনন্য উৎস। যদিও বইটি মূলত ছবির ফোলিও, তবে ছবিগুলোর সাথে সাথে ঢাকার ইতিহাসের প্রাসঙ্গিক বর্ণনাও সংযুক্ত আছে।

ডি’ওয়লি ঢাকায় অবস্থানকালীন বেশ কিছু ছবি আঁকেন, যার বেশীর ভাগই মূঘল স্থাপত্যের ধ্বংসাবশেষ, এবং সেগুলোকে ফোলিও আকারে প্রকাশের উদ্যোগ নেন। ‘Antiquities of Dacca’ চার জন ব্যাক্তির পরিশ্রমের ফসল; ছবিগুলোর স্কেচ এঁকেছিলেন চার্লস ডি’ওয়লি, ঢাকার ইতিহাসের প্রাসঙ্গিক বর্ণনা লিখেছেন ডঃ জেমস অ্যাটকিনসন এবং জর্জ চিনারী, আর এনগ্রেভিং (Engraving) করেছেন জে. ল্যান্ডশিয়ার। এনগ্রেভিং-এর পর লন্ডন থেকে ফোলিও আকারে প্রকাশ করা হয়।

প্রথম ফোলিও প্রকাশিত হয় ১৮১৪ সালে, এবং পরবর্তীগুলো ১৮১৭, ১৮২৬ এবং সর্বশেষটি ১৯২৭ সালে। প্রথম ফোলিওতে ৪টি, দ্বিতীয় ফোলিওতে ৪টি, তৃতীয় ফোলিওতে ৫টি এবং চতুর্থ ফোলিওতে ৫টি ছবি ছিল। যদিও সর্বমোট ৬টি ফোলিও প্রকাশের কথা বলা হয়েছিল, কিন্তু সম্ভবত পরবর্তীতে আর কোন ফোলিও প্রকাশিত হয়নি।

‘Antiquities of Dacca’-এর ফোলিওগুলো এবং এর সাথে সংযুক্ত ঢাকার ইতিহাসের বর্ণনাগুলোই একত্রে ‘Some Account of the City of Dacca’ নামে প্রকাশিত হয়েছিল। যদিও ‘Antiquities of Dacca’ মূলত ডি’ওয়লির স্কেচ থেকে তৈরী, কিন্তু চিনারীর বেশ কিছু ছবি এখানে স্থান পেয়েছে। ‘Some Account of the City of Dacca’ –এর প্রচ্ছদের ছবিটিও চিনারীর আঁকা।

Cover Title: Account of Dacca [A Hut beside a Tomb]
Artist: George Chinnery
Medium: Etching
Plate No.: 1
Date: 1816
Accompanying Text: Dr. James Atkinson

অ্যাটকিনসন লিখেছেন ঢাকা ভারতের সবচেয়ে আনন্দজনক কর্মস্থল, জলবায়ু স্বাস্থ্যকর এবং মনোরম; এখানে বাজারে পণ্যের বিপুল সমাহার … এবং প্রতিটি পণ্যই উৎকৃষ্ট শ্রেণীর। চিনারীর এই অসাধারন ছবিটি তৎকালীন ঢাকার প্রাচীন ও অভিজাত একটি মসজিদের স্থাপত্য রীতির সাথে দেশজ দেহাতি স্থাপত্যের মধ্যে বৈসাদৃশ্য সুচারুরূপে উপস্থাপন করে।

‘Antiquities of Dacca’ –এর উপর একটি রিভিউ লেখা হয়েছিল ‘The Oriental Herald’ -এ, Vol XI, October to December 1826. p 310-316. (লিঙ্কঃ Click This Link)

প্রথম ফোলিও যেসব ছবি নিয়ে গঠিত হয়েছিলঃ Mosque on the Booraganga Branch of the Ganges; Part of the City of Dacca; The Mosque of Syuff Khan; Remain of a Bridge near Tantee Bazar। প্রতিটি ছবির সাথে একটি বর্ণনামূলক ভূমিকা সংযুক্ত ছিল। প্রথম ফোলিও সংক্রান্ত কিছু সাধারণ তথ্যঃ

Published by J. Landseer. London 4 Jun 1814.
33 Foley Street, London 1814-1827.
Engraved by J. Landseer
Printed by John Tyler, 13 Rathbone Place, Oxford Street.
Sheet size 580 x 430mm. (23 x 17ins)
Plate size 335 x 265mm. (13.25 x 10.5ins)
Etched (probably from steel plates) from D’Oyly’s sketches.

1. Title: View of a Mosque on the Booragunga branch of the Ganges (Satgumbuz Masjid)
Artist: Sir Charles D’Oyly
Medium: Etching
First Folio, Plate No.: 17
Date: 1814
Accompanying Text: Dr. James Atkinson
Price at Indoislamca: £425.00

ডঃ জেমস অ্যাটকিনসনকে এই ছবিটি ভেনিসের কথা স্মরণ করিয়ে দিয়েছিল। তিনি এর গঠনের নিপুণতা, স্থাপত্য বৈশিষ্ট্য, আভিজাত্য এবং সহজতার সমন্বয়ে মুগ্ধ হয়েছিলেন। তিনি বলেছেন কাল, আগ্রাসী জঙ্গল এবং বিরুদ্ধ প্রকৃতি যদিও স্থাপনাটির যথেষ্ট ক্ষতিসাধন করেছে, তথাপি একটি আধ্যাত্তিক স্নিগ্ধ গাম্ভীর্য এটাকে ঘিরে রয়েছে।

2. Title: Part of the Interior of the City of Dacca
Artist: Sir Charles D’Oyly
Medium: Etching
First Folio, Plate No.: 18
Date: 1814
Accompanying Text: Dr. James Atkinson

ছবিটির বর্ণনায় লেখা আছে যে স্থাপত্যটি বর্ষায় বন্যার পানির উচ্চতা পরিমাপের জন্য নির্মিত হয়েছিল; অ্যাটকিনসন অবশ্য এ ব্যাপারে সন্ধিহান ছিলেন।

3. Title: Mosque of Syuff Khan
Artist: Sir Charles D’Oyly
Medium: Etching
First Folio, Plate No.: 19
Date: 1814
Accompanying Text: Dr. James Atkinson

এটি প্রথমে একটি হিন্দু মন্দির হিসেবে নকশা করা হয়েছিল, কিন্তু পরবর্তীতে এটাকে মসজিদ হিসেবে তৈরী এবং ব্যবহার করা হয়। মসজিদটির তিনটি গম্বুজ ছিল; ১৮১১ সালে বর্ষা মৌসুমে এটার ছাদ ভেঙ্গে পড়ে। অ্যাটকিনসনের পর্যবেক্ষণ অনুসারে ঢাকার জলবায়ু ঝাড়-জঙ্গল বৃদ্ধির দ্রুত সহায়ক; তিনি বলেছেন এরই ফলশ্রুতিতে পরিত্যক্ত মসজিদটি দ্রুত পর্ণরাজিতে আবৃত হয়ে গিয়েছে।

4. Title: Remains of a Bridge near the Tantee Bazar
Artist: Sir Charles D’Oyly
Medium: Etching
First Folio, Plate No.: 20
Date: 1814
Accompanying Text: Dr. James Atkinson
Price at Indoislamica: £375.00

এই ব্রীজটি তাঁতী পাড়ার কাছে একটি খালের উপর ছিল। অ্যাটকিনসন লিখেছেন যে অনুকূল পরিবেশে খালটি জলজ আগাছায় এতটাই পূর্ণ হয়ে গিয়েছে যে এমনকি ছোট নৌকাকেও খালটি পাড় হতে বেগ পেতে হয়। ঢাকার এই অঞ্চলটি নৌকা তৈরী এবং কাঠের কাজের জন্য প্রসিদ্ধ ছিল।

দ্বিতীয় ফোলিও যেসব ছবি নিয়ে গঠিত হয়েছিলঃ ফোলিওটি ঢাকার প্রাসঙ্গিক বর্ণনা দিয়ে শুরু করা হয় এবং যে চারটি ছবি স্থান পায় তা হলঃ Small Kuttra; Pugla Pool; The Fort and the North Gateway; Bastion of Lalbagh। দ্বিতীয় ফোলিও সংক্রান্ত কিছু সাধারণ তথ্যঃ

Published by J. Landseer. London 1 Jan 1817.
33 Foley Street, London 1814-1827.
Engraved by J. Landseer
Printed by John Tyler, 13 Rathbone Place, Oxford Street.
Sheet size 580 x 430mm. (23 x 17ins)
Plate size 335 x 265mm. (13.25 x 10.5ins)
Etched (probably from steel plates) from D’Oyly’s sketches.

1. Title: The Small Kuttra with its enclosed Mosque (Choto Katra)
Artist: Sir Charles D’Oyly
Medium: Etching
Second Folio, Plate No.: 9
Date: 1817
Accompanying Text: Dr. James Atkinson
Price at Indoislamica: £375.00

বড় কাটরার অল্প কিছু দূর পূবেই ছোট কাটরার অবস্থান ছিল, যা মূলত একটি অনুরূপ কিন্তু তুলনামূলক ছোট স্থাপত্য। শায়েস্তা খান ১৬৬৩ সালে এটা তৈরী করেন। এটি ছিল একটি সরাই খানা। ছবির বিষয়বস্তু অবশ্য কাটরা প্রাঙ্গন এবং এর অভ্যন্তরীন মসজিদ। অ্যাটকিনসনের বর্ণনায় এর মিনারগুলো রুচিশীল অষ্টাকৃতির কলামের উপর ছিল; মিনারগুলোর মাথা ছিল প্রাচ্যদেশীয় লতা-পাতায় পরিপূর্ণ। মসজিদটির গম্বুজটি ছিল খাঁজকাটা। প্রকৃতির পারিপার্শ্বিক চিত্র-বিচিত্র উদ্ভিজ্জের সাথে মসজিদটির একটি চমৎকার চিত্রবৎ সাদৃশ্য বিরাজমান।

2. Title: Paugla Pool with Part of Dacca in the Extreme Distance
Artist: Sir Charles D’Oyly
Medium: Etching
Second Folio, Plate No.: 3
Date: 1817
Accompanying Text: Dr. James Atkinson
Price at Indoislamica: £325.00

১৭শ সালের দিকে ঢাকা-নারায়নগঞ্জের মাঝামাঝি কদমতলীর কাছে নির্মিত পাগলা পুল ছিল একটি বিখ্যাত স্থাপনা, কিন্তু ডি’ওয়লি এবং অ্যাটকিনসন যখন দেখেছেন তখন এটা ধ্বংসপ্রাপ্ত। অ্যাটকিনসন বর্ণনা করেছেন হাল্কা আলো-আধারীর মাঝে দূর থেকে ঢাকা শহর দৃষ্টিগোচর হয়। সূর্যালোকের আংশিক কিরণ যখন উদ্দীপ্ত,বিস্তৃত প্রান্তর এবং পুরোভাগের অন্ধকারময় বৃক্ষ-পত্ররাজি এবং সেতু এর রোমান্টিক ধ্বংসাবশেষ বিপরীতে ইউরোপীয় অধিবাসীদের সাদা ঘরগুলো সুদূরে জ্বলজ্বলে ভাবে দীপ্তমান।

3. Title: The Fort and North Gateway of the Great Kuttra (Baro Katra)
Artist: Sir Charles D’Oyly
Medium: Etching
Second Folio, Plate No.: 12
Date: 1816
Accompanying Text: Dr. James Atkinson
Price at Indoislamica: £350.00

অ্যাটকিনসন লিখেছেন দুর্গাভ্যন্তরে একসময় অনেক দালান ছিল, কিন্তু এখন সেখানে দূর্গপ্রাচীরের অবশিষ্টাংশই শুধুমাত্র বিদ্যমান। প্রাচীরগাত্রে প্রতিরক্ষায় ব্যবহৃত ছিদ্রগুলো তখনও ছিল। শহরের কারাগারটি এখানেই অবস্থিত। মুঘল আমলে দুর্গাভ্যন্তরে টাকশাল ছিল যেটি ইষ্ট ইন্ডিয়া কোম্পানি ১৭৯৭ সাল পর্যন্ত ব্যবহার করেছে; পরবর্তীতে তা বিলুপ্ত হয়। বামেই মুঘল স্থাপত্যের অসাধারণ নিদর্শন বড় কাটারার প্রবেশ পথ যা সরাইখানা হিসেবে ব্যবহৃত হত। ডান দিকে চকের হুসেইনি দালান মসজিদ দৃশ্যমান।

4. Title: Bastion of the Lal Bagh
Artist: Sir Charles D’Oyly
Medium: Etching
Second Folio, Plate No.: 10
Date: 1816
Price at Indoislamica: £425.00

১৬৭৭ সালে সম্রাট আওরংজেবের পুত্র মুহাম্মাদ আযম এর নির্মাণ কাজ শুরু করেন; কিন্তু এর নির্মাণ শেষ করতে পারেননি। এটি তিন তলা বিশিষ্ট স্থাপনা; এছাড়াও এখানে আছে পরী বিবির সমাধি এবং একটি মসজিদ।

তৃতীয় ফোলিও যেসব ছবি নিয়ে গঠিত হয়েছিলঃ ৭ম থেকে ১৩তম পৃষ্টা পর্যন্ত ছবির বর্ণনা সংযুক্ত ছিল। ৫টি ছবি হলঃ Pugla Pool from the River; Modern Habitations Drawn by Chinnery; Ruins of Tungy Bridge; Facsimile of an Inscription in the Great Kuttra; Mosque in the Suburbs of Dacca। তৃতীয় ফোলিও সংক্রান্ত কিছু সাধারণ তথ্যঃ

Published by J. Landseer. London 1826
Engraved by J. Landseer
Printed by:
Sheet size:
Plate size:
Etched from D’Oyly’s sketches

1. Title: Pagla pool from the river
Artist: Sir Charles D’Oyly
Medium: Etching
Third Folio, Plate No.: 4
Date: 1817
Accompanying Text: Dr. James Atkinson

পাগলা পুলের দৃষ্টিনন্দন ধ্বংসাবশেষ। অ্যাটকিনসন এটাকে সবচাইতে অভিজাত স্থাপত্য হিসেবে উল্লেখ করেছেন। তিনি বলেছেন বন্যা অথবা যুদ্ধে ভেঙ্গেচুড়ে যাওয়া সত্ত্বেও এটি ছিল অন্ত্যন্ত নজরকাড়া।

2. Modern habitations at Dacca
Artist: George Chinnery
Medium: Etching
Third Folio, Plate No.: ?
Date: 1823
Accompanying Text: Dr. James Atkinson

জর্জ চিনারী তিন বছর ঢাকায় ছিলেন ডি’ওয়লির সাথে। তিনি প্রায় ৫০টির মত ছবি এঁকেছিলেন ঢাকার ধ্বংসাবশেষের উপর, কিন্তু এগুলো কখনই প্রকাশিত হয়নি। ডি’ওয়লি তার নিজের অঙ্কিত ছবি সিরিজ আকারে প্রকাশের উদ্দ্যোগ নেন, যা ছিল অনেকাংশে চিনারীর দ্বারা প্রভাবিত।

অ্যাটকিনসন ছবিটি সম্পর্কে বলেছেন, চিনারীর পেন্সিল থেকে আঁকা আরেকটি সুনিপুণ শিল্পকর্ম যা তার জাত চেনায়। ছবিতে বেশ কিছুটা দূরে নদীর পাড়ে দুই-তিনটি কুটির দেখা যাচ্ছে। ছবির মূল বাড়িটি একজন দরিদ্র মসলিন তাঁতীর, যা বাঁশ, কাদামাটি, এবং খড়ের আচ্ছাদন দ্বারা নির্মিত। তাঁতীর ব্যবহার্য ছাতা এবং কয়েকটি গৃহস্থালী বাসনকোসন পড়ে আছে উঠোনে। ডান দিকে তাতের অংশ বিশেষ দেখা যাচ্ছে।

3. Title: Ruins of Tungy Bridge
Artist: Sir Charles D’Oyly
Medium: Etching
Third Folio, Plate No.: 2
Date: 1825

উনিশ শতকে ঢাকায় বসবাসকারী ইংরেজদের কাছে শিকারের স্থান হিসেবে টংগী ব্রিজের আলাদা আবেদন ছিল। অ্যাটকিনসনের ভাষায়, যদিও ব্রীজটির ভগ্নদশা তথাপি এর সুস্পষ্ট নান্দনিক আকর্ষণ ঢাকার পুরাকীর্তির সঙ্কলণে আমাদের বিবেচনার জোর দাবীদার। এর বিশাল আকৃতি বটের শিকড় আর পত্র-পল্লবে চমৎকারভাবে মিশে গেছে।

4. Facsimile of an Inscription in the Great Kuttra
Artist: Dr. James Atkinson
Medium: Engraving
Third Folio, Plate No.: 7
Date: 1825

এই লিপিটি ফার্সিতে বড় কাটরার দেয়ালের উপর লেখা ছিল। উৎকীর্ণ লিপিটির অর্থ হচ্ছে আবুল-কাসিম তাবাতাবা শুজা হুসাইনি আল-সিমমানি এই ভবন এবং সংলগ্ন ২২টি দোকান নির্মাণ করেন। এই দোকান থেকে অর্জিত মুনাফা বড় কাটরার মেরামত খরচ হিসেবে ব্যবহৃত হবে এবং ভ্রমণকারী এবং ব্যবসায়ীদের বিনামূল্যে আশ্রয় অথবা সরাইখানার সুবিধা প্রদানে ব্যয় করা হবে। এই শর্তের লংঘন করা যাবে না; অন্যথায় শেষ বিচারের দিন শাস্তি প্রাপ্ত হবে। এই লিপিটি সউদ আল-দিন মুহাম্মাদ শিরাযী হিজরী ১০৫৫ সনে (১৬৪৫ ইং সাল) লিখেন।

5. Mosque in the Suburbs of Dacca
Artist: Sir Charles D’Oyly
Medium: Etching
Third Folio, Plate No.: ?
Date: 1825
Accompanying Text: Dr. James Atkinson

অ্যাটকিনসন বলেছেন, যদিও মসজিদটি চিত্রকর, স্থপতি এবং রুচিশীল ব্যক্তিবর্গের দৃষ্টিতে পড়ার অত্যন্ত উপযুক্ত, কিন্তু এটি সম্বন্ধে নিশ্চিতভাবে কিছুই জানা যায় না। ঢাকা থেকে টঙ্গী যাবার পথে এই মসজিদটি অবস্থিত। স্থাপনাটি বিভিন্ন ধরনের গাছ-পালায় ঢেকে গেছে, শিকড়গুলো মসজিদটিকে যেন গভীরভাবে আলিঙ্গনাবদ্ধ করে রেখেছে।

চতুর্থ ফোলিও যেসব ছবি নিয়ে গঠিত হয়েছিলঃ প্রথমে ছিল The Great Kuttra এবং তারপরে ১৫তম থেকে ২০তম পৃষ্ঠা অবধি বর্ণনা। তারপর আরো ৪টি ছবিঃ Part of Dacca from the Doullay Nulla; Mosque on the Mug-Bazar; a Muslin Manufacturer Drawn by Chinnery; the Chouk। চতুর্থ ফোলিও সংক্রান্ত কিছু সাধারণ তথ্যঃ

Published by J. Landseer. London 1827
Engraved by J. Landseer
Printed:
Sheet size:
Plate size:
Etched from D’Oyly’s sketches.

1. Title: The Great Kuttra (Bara Katra)
Artist: Sir Charles D’Oyly
Medium: Etching
Fourth Folio, Plate No.: 6
Date: 1823

বড় কাটরা বুড়িগঙ্গার পূর্ব পাড়ে অবস্থিত। আবুল-কাসিম ১৬৬৪ সালে ভ্রমণকারী এবং ব্যবসায়ীদের বিনামূল্যে আশ্রয় অথবা সরাইখানার সুবিধা প্রদানের জন্য এই স্থাপনাটি নির্মাণ করেন। কাটরা শব্দটি সম্ভবত আরবী থেকে উদ্ভূত, যা গম্বুজ হিসেবে ব্যবহৃত; ফার্সী এবং সংস্কৃতেও অনুরূপ শব্দ আছে।

স্থাপনাটির সম্মুখে বালিতে অর্ধেক ঢেকে থাকা একটি বিশাল কামান ছিল যা বর্ষায় পানিতে ডুবে যেত। অ্যাটকিনসন বড় কাটরা সম্বন্ধে বলেছেন, এটি জমকালো এবং সুন্দর স্থাপত্যের একটি বিস্ময়কর নিদর্শন।

2. Title: Part of Dacca from the Douillac Nulla
Artist: Sir Charles D’Oyly
Medium: Etching
Fourth Folio, Plate No.: 15
Date: 1826

ধোলাই খালের (Douillac Nulla – ধোলাই নালা?) পশ্চিম তীর থেকে ঢাকার একটি সাধারণ ছবি।

3. Title: Mosque on the Mug-Bazar road, Dacca
Artist: Sir Charles D’Oyly
Medium: Etching
Fourth Folio, Plate No.: 8
Date: 1827
Accompanying Text: Dr. James Atkinson

অ্যাটকিনসন এটাকে একটি সাম্প্রতিক স্থাপনা হিসেবে উল্লেখ করেছেন। তিনি বলেছেন এর বিশাল অথচ সাধারণ আকৃতির বিপরীতে কারুকার্যময় প্রান্ত এবং কৃশ মিনারগুলো খুবই রুচিশীলভাবে মানানসই।

4. Title: A Tantee or Indian weaver
Artist: Sir Charles D’Oyly
Medium: Etching
Fourth Folio, Plate No.: 16
Date: 1827

একজন মসলিন তাঁতী।

5. Title: The Chouk (or Marketplace) and Husseinee Delaun
Artist: Sir Charles D’Oyly
Medium: Engraving
Fourth Folio, Plate No.: 13
Date: 1827
Accompanying Text: Dr. James Atkinson

অ্যাটকিনসনের বর্ণনা মতে ঢাকার এই অংশটি (চক) অনেক পুরনো। মুর্শীদ কুলী খান এটা প্রতিঠিত করেন। ২০০ বর্গ গজের এই বাজারে ফল, শাক-সব্জী, ক্ষুদ্র মনোহারী সামগ্রী, খেলনা, মিষ্টি এবং অন্যান্য নানাবিধ দ্রব্যাদি প্রতিদিন বিক্রির উদ্দেশ্যে আনা হত। সূর্যাস্তের পরে এলাকাবাসী এখানে জটলাকারে জমায়েত হত। বাজারের পাশেই হুসাইনি দালান যেটি ১৬৭৬ সালে নির্মাণ করা হয়।

ডি’ওয়লির আঁকা আরেকটি স্কেচ, যা ‘Antiquities of Dacca’ তে স্থান পায়নিঃ

Title: Ruins of Part of Pagla Pool (circa 1809)

তথ্য সূত্রঃ
British Library
বাংলা পিডিয়া
http://www.indoislamica.com
http://www.columbia.edu
http://www.banglatorrents.com

 

মূল লেখা এখানে

http://www.somewhereinblog.net/blog/asfiazad/29491740#c7281309

লেখাটির ব্যাপারে আপনার মন্তব্য এখানে জানাতে পারেন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s

%d bloggers like this: