সবচেয়ে বড় গিগা পিক্সেল ছবি

এটা এ যাবৎ কালের সবচে বড় গিগা পিক্সেল ছবি। ৬,১৩,৩৭৬ পিক্সেল চওড়া আর ১,৮১,২৪৮ পিক্সেল উঁচু। ছবিটা প্রিন্ট করলে ১৩,৮০০ স্কয়ার মিটার হবে যা দু’টি ফুটবল ফিল্ডের চেয়েও বড়।

সেভিলা – ১১১


স্ক্রীন-শট

সেভিল নগরীর ছবি। ১১১ গিগা পিক্সেল। ৯,৭৫০ টি ছবির সমষ্টি। Isla de la Cartuja ‘তে অবস্থিত Torre Schindler এর সবচে উঁচু প্ল্যাটফর্ম (৬০ মিটার) থেকে তোলা। ২০১০ এর ডিসেম্বর থেকে প্রদর্শিত হচ্ছে। José Manuel Domínguez আর Pablo Pompa, এ দুই ফটোগ্রাফারের স্বপ্ন ছিলো তাদের এই প্রিয় শহরটির প্রতিটি ইঞ্চির সাথে পৃথিবীর মানুষের পরিচয় করিয়ে দেবার। অতীতে তা ছিলো অসাধ্য। কিন্তু বর্তমান ডিজিটাল ফটোগ্রাফি আর দানবীয় ক্ষমতা সম্পন্ন কম্পিউটারাইজড রোবটের সাহায্যে তা সম্ভব হয়েছে।

এখন সহজেই দেখতে পাবেন La Giralda’র বেলফ্রাই কিংবা ক্যাথিড্রালের দেয়ালের সূক্ষ্ম ডিটেইল। সাথে সেভিলের আনাচে কানাচের দৃশ্যতো থাকছেই। ছবিটা ঘূর্ণায়মাণ। যে কোন জায়গার যুম করতে পারবেন। বা নীচের পয়েন্ট অফ ইন্টারেস্টে ক্লিক করলে সরাসরি নিয়ে যাবে।

২০১০ এর মার্চে এই প্রজেক্টের কাজ শুরু। কয়েকবার শুটিং এর স্থান পরিবর্তন করে এপ্রিলের শুরুতে ছবি তোলার কাজ শুরু হয়।

এখান থেকে রোবোট মিয়া ছবি তুলেছে।

একটা Canon 5D mkII ক্যামেরা যার ফোকাল ডিস্টেন্স ৮০০ মিমি, সেটা দিয়ে ১/৮০০ শাটার স্পীডে রোবট দিয়ে ছবি গুলো তোলা (অ্যাপারচার f16 আর ISO800)।

এই সেই ক্যামেরা ভদ্রলোক।


তার আবার ছাতাও লাগে, সে সাথে রয়েছে নিজস্ব অ্যানিমোমিটার, বায়ুর গতিবেগ পরিবর্তনের সাথে সাথে কম্পিউটার তার পজিশান ঠিক করে দেয়।

অবশেষে ৩০ সেপ্টেম্বর ২০১০, প্রায় ছ’মাসের কঠোর পরিশ্রম আর বারোটি উদ্যোগের পর যথেষ্ট পরিমাণ ছবি সংগৃহীত হয়। শেষ দিনেই তোলা হয় প্রায় ১৪,০০০ ছবি।

প্রায় ৩৫,০০০ ছবি তোলা হয়েছে। এর মাঝে ৯,৭৫০ টি বাছাই করা হয়। এরপর দু’টি ৬ কোরের যিয়ন প্রসেসরের পিসি, ৪০ গিগা RAM আর ৮ টেরা বাইটের হার্ড-ডিস্ক। অটোপ্যানো গিগা ২.৫ (বেটা) নামের সফটওয়্যার দিয়ে জোড়া লাগানো, যা একটা বিশাল .pano ফাইল তৈরী করেছে। Krpano সফটওয়্যার কে ভিউয়ার হিসেবে ব্যবহার করা হয়েছে, যেটা প্রায় সব ব্রাউজারের সাথেই কম্প্যাটিবল। এখানে দর্শকরা যেটা দেখতে পান তা ১,৪০,০০০ হাজার ছোট ছোট ছবির সমষ্টি যা মূল ৯,৭৫০ টি ছবির ফসল।


সবাই খুশি, এমনকি দূরের ঐ ক্যাথিড্রাল টিও।

মূল লিংকে ক্লিক করলেই সব তথ্য পেয়ে যাবেন।

 

http://www.somewhereinblog.net/blog/Someone_2009/29406383

লেখাটির ব্যাপারে আপনার মন্তব্য এখানে জানাতে পারেন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s

%d bloggers like this: