Salk Institute – আমাদের জাতীয় সংসদ ভবনের স্থপতি লুই আই কান এর করা আরেকটি অনবদ্য স্থাপত্য

১৯৬৯ এর এক ধুষর বিকেলে California র La Jolla শহরে একদিন সবাই দেখল এক বুড়ো সন্ন্যাসি এসে ঘাটি গেড়েছে। সবাই মনে মনে খুশি হল-অবশেষে সক ইনস্টিটিউট এর ডিজাইন করার জন্য এসেছেন সেই বুড়ো ঋষি- যাকে পুরো পৃথিবীতে লুই কান নামে সবাই চেনে।

সেই লুই কান যিনি এশিয়ার পিড়ামিড খ্যাত বাংলাদেশের সংসদ ভবনের স্থপতি-সেই লুই কান এসেছেন La Jolla -য় এটা দেখে সবাই খুশি হল-এটা জেনে যে তিনি তাঁর পরবর্তী প্রজেক্ট হাতে নিয়েছেন এই La Jolla তেই।

বাড়িটা ছিলো মূলত ল্যাবরেটরি -সাথে রিসার্চ ইনস্টিটিউট-সব গম্ভীর মানুষ জন-যারা দিনরাত গবেষনা নিয়েই পড়ে থাকেন-সেই গবেষকদের জন্য কিছু একটা করতে গিয়েই তিনি এমন একটা পরিবেশ তৈরি করলেন যেখানে গেলে অনেক গুমোট ভাবের লোকদের ও মেজাজ হালকা হয়ে যায়-

এখানে একটা প্রধান ক্রাইটেরিয়া ছিলো গবেষনার জন্য অনেক বড় কলাম বিহীন স্হানের প্রয়োজনীয়তা-যেটা কান করেছিলেন একটা বড় হোল স্পেস তৈরির মাধ্যমে-সেই স্পেস এ ছিলো মুল স্ট্রাকচার আর থাকার যায়গা-

এই ছবিতে স্ট্রাকচারাল ভয়েড টা দেখা যাচ্ছে- যেটা ১৯৬২ সালের তুলনায় ছিলো আসলেই অনেক টা অসম্ভব-যেটাকে সম্ভব করেন কান-শুধু মাত্র সিভিল ইন্জিনিয়ার দের সাথে দিনের পর দিন বসে বসে ওয়ার্ক আউট করার মাধ্যমে।


কানের করা একটা স্কেচ- যেটার সাথে মিলে গিয়েছিলো তাঁর স্থাপনা
এক নজর দেখে নিন


কি অদ্ভুত একটা স্পেস- এখানে আসলে নাকি অনেক গম্ভীর লোকজন ও কবিতা লেখা শুরু করে দেন-

এই ইনস্টিটিউটে মোট বিভাগ আছে ১৩ টি-সাথে আছেন শ-খানেক প্রফেসর-যারা দিন রাত গবেষনা করে চলেছেন বিভিন্ন বিষয়ের উপর-
বিষয় গুলো হল-
1.Plant Molecular and Cellular Biology Laboratory
2.Regulatory Biology Laboratory
3.Structural Biology Laboratory
4.Gene Expression Laboratory
5.Laboratory of Genetics
6.Molecular Neurobiology Laboratory
7.Cellular Neurobiology Laboratory
8.Systems Neurobiology Laboratories
9.Computational Neurobiology Laboratory
10.Clayton Foundation Laboratories for Peptide Biology
11.Molecular and Cell Biology Laboratory
12.Chemical Biology and Proteomics Laboratory
13.Immunobiology and Microbial Pathogenesis Laboratory

কান আরো একটা অদ্ভুত কাজ করেছিলেন- এই স্থাপনা তৈরি করার আগ মুহুর্তে তিনি এখানের কনক্রিটের সাথে মিশিয়ে দেন ভলকানো এশ-যার ফলে এই কনক্রিট এক এক সময় এক এক রুপ ধারন করে-


এটা সেই কোর্টিয়াড যেখানে কি করবেন কান ভেবে পাচ্ছিলেন না-তারপর উনার গুরু Luis barragan কে ডেকে আনেন-সাথে আসেন প্রাইরর-উনারা মত দেন এখানে কোন প্রকার গাছ না লাগিয়ে এটাকে এভাবেই রেখে দিতে-

কান ঠিক সেই কাজটাই করেন।

 

http://www.somewhereinblog.net/blog/architect_rajib/29382608

লেখাটির ব্যাপারে আপনার মন্তব্য এখানে জানাতে পারেন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s

%d bloggers like this: