অস্কার যাদের কপাল পোড়ালো

মূল লেখার লিংক

আগামী ২৭ ফেব্রুয়ারি অনুষ্ঠিত হবে অ্যাকাডেমি অ্যাওয়ার্ডের ৮৩ তম আসর।মুখে যত গালিই দেই না কেন, রবিবার সারা বিশ্ববাসীর চোখ থাকবে কোডাক থিয়েটারের উপর। সব চলচিত্রকর্মীর স্বপ্ন থাকে, একদিন তার হাতে এই পুরস্কারটি উঠবে (এমনকি ড: মাহফুজুর রহমানেরও ধারণা কাজী হায়াৎ একদিন অস্কার পাবেন /:) )।কিন্তু এই বহু আকাঙ্খিত পুরস্কারটাই অনেকের জীবনে অভিশাপ হয়ে আসে।আজ তেমনই কিছু দুর্ভাগার কথা বলবো।


Kim Basinger

১৯৯৭ সালে L.A. Confidential মুভি দেখে সবার মাথা ঘুরে যায়।মুভিটা তো তর্কাতীতভাবে ভালো।তবে, সেই সাথে মুভির কী-পয়েন্ট ছিলো Kim Basinger এর দারুণ অভিনয় আর চোখ ধাঁধানো গ্ল্যামার :P।এই মুভির জন্যই অস্কার বাগিয়ে নেন তিনি।আর তারপরেই হারিয়ে যান।গত এক যুগে তার উল্লেখযোগ্য মুভির সংখ্যা মাত্র ৩ (8 Mile, Cellular, The Informers।শেষ দুটো মুভি কেউ দেখেছেন বলেও মনে হয় না।)।

(আমার ব্যক্তিগত অভিমত: আপার বয়স বেশি হয়ে গিয়েছিলো।অস্কার জেতার সময় তার বয়স ছিলো ৪৪।তাই, ভালো রোল পাওয়ার স্কোপ কম ছিলো।Meryl Streep এর মতো পাব্লিক পুরা দুনিয়াতে একবারই জন্মায় B-) ।)


Catherine Zeta-Jones

২০০২ সালে Chicago মুভির জন্য অস্কার জিতেন ক্যাথরিন।তারপরেই হারিয়ে যান অভিনেত্রী ক্যাথরিন।বেশিরভাগ মুভিতেই তার উপস্হিতি ছিলো শো-পিসের মতো (No Reservations বাদে)।অস্কার জেতার পরে তার উল্লেখযোগ্য কয়েকটি মুভির নমুনা দেখুন, The Terminal, Ocean’s Twelve আর Death Defying Acts (Zorro সিরিজের মুভি ইচ্ছে করেই বাদ দিলাম)।

(আমার ব্যক্তিগত অভিমত: কোনো অভিমত নাই, শুধু রাগ আছে।
এবং সেটা মাইকেল ডগলাসের উপ্রে ;) :P)


Roberto Benigni

১৯৯৭ সালে এই ভদ্রলোক একটা মুভি বানান ও নিজেই লীড রোলে অভিনয় করেন।মুভিটার নাম Life is Beautiful।আর তারপরেরটুকু ইতিহাস।যারা এই মুভিটি দেখেছেন, আজও তাদের ভালো লাগা কমেনি।কমবেও না।সর্বকালের সেরা মুভির তালিকায় খুব সহজেই এই মুভিকে খুঁজে পাওয়া যায়।এর পরে, প্রায় ৫ বছর বিরতি দিয়ে Benigni তৈরী করেন ইতালির সর্বকালের সবচে ব্যয়বহুল মুভি Pinocchio।এই মুভিটির কথা সম্ভবত তিনি দুঃস্বপ্নেও মনে করতে চাইবেন না।মুভিটা সম্পর্কে দুটো তথ্য দেই।imdb-তে এর বর্তমান রেটিং ৩.৭।আর রটেন টমেটোস-এ ০%।শুধু তাইনা, রটেন টমেটোস সর্বকালের সবচে বাজে ১০টি মুভির একটি তালিকা করেছে।সেটায় Pinocchio-এর অবস্হান ৪!

(আমার ব্যক্তিগত অভিমত: এক জীবনে Life is Beautiful এর মতো একটা মুভি বানানোই যথেষ্ঠ।)


Kevin Spacey

পাঁচ বছরের মাঝে দুই-দুই বার অস্কার জিতেছেন এই ভদ্রলোক।কিন্তু অ্যামেরিকান বিউটি মুভির পর তেমন কোনো ভালো চরিত্রে তাকে দেখা যায়নি।বরং The Life of David Gale ও Superman Returns-এ ভয়ানক অভিনয় করতে দেখেছি।প্রথমটা কোনো উদ্দেশ্যবিহীন আর দ্বিতীয়টি অতি-অভিনয় লেগেছে।মুভি জগতের সবচে সম্মানিত ও বিখ্যাত সমালোচক Roger Ebert এই মুভি সম্পর্কে বলেছেন: “The last shot made me want to throw something at the screen–maybe Spacey.”

(আমার ব্যক্তিগত অভিমত: আমার কাছে Recount, K-PAX, 21 ও A Time to Kill মুভিতে তার কাজ খুব ভালো লেগেছে।L.A. Confidential-এর কথা কিছু কইলাম না।ওইটা আগাগোড়া একটা মাস্টারপীস :-B ।)


Adrien Brody

সবচে কম বয়সী অভিনেতা হিসেবে অস্কার জিতেছিলেন ব্রডি (২৯ বছর।রেকর্ডটি আজও অটুট আছে)।জিনিয়াস ডিরেক্টর Roman Polanski-এর The Pianist (2002) মুভিটি পাল্টে দেয় তার জীবন।কিন্তু এরপর তিনি কোনো ভালো কাজ উপহার দিতে পারেননি।King Kong থেকে শুরু করে Brothers Bloom, সব মুভিতেই তিনি ছিলেন পার্শ্বচরিত্র হিসেবে।অস্কার পাওয়ার পর ফুরিয়ে যাওয়ার অন্যতম সেরা উদাহরণ /:)

(আমার ব্যক্তিগত অভিমত: Adrien Brody-এর বয়স এখন ৩৭ বছর।অনেক অভিনেতার ক্যারিয়ার শুরুই হয়েছে ৪০-এর পরে।সুতরাং, এখনো তার হাতে অনেক সময় আছে।)


অনারেবল মেনশন: Night Shyamalan

The Sixth Sense এর জন্য অস্কার পুরস্কার না স্রেফ নমিনেশন পেয়েছিলেন মুভিটির পরিচালক শ্যামালান।এর পরের মুভিগুলো যে একই পরিচালকের বানানো, সেটা বিশ্বাস করতেও কষ্ট হয়।আর গত বছর তিনি বানিয়েছেন The Last Airbender।আর কিছু বলার নাই /:) ।এই মুভিটার জন্য এবার তার razzie award জেতার প্রবল সম্ভাবনা রয়েছে ;)

আপডেট: ওর্স্ট ডিরেক্টর এর অ্যাওয়ার্ডসহ The Last Airbender মুভিটি মোট পাঁচটি razzie award পেয়েছে।এতো কিছুর পরও শ্যমালান মনে হয় এটার সিক্যুয়েল না বানিয়ে ছাড়বেন না।

**পোস্টটি একটি মুভি ওয়েবসাইট থেকে কপি-পেস্ট করা।
মূল লেখা

অস্কার অ্যাওয়ার্ডের উপর আমার ব্যক্তিগত কিছু ক্ষোভ আছে।সর্বকালের সেরা দুই পরিচালক Stanley Kubrick আর Alfred Hitchcock এরা তাদের জীবনে কখনোই সেরা পরিচালকের পুরস্কার পাননি।এ যেন, পেলে আর ম্যারাডোনাকে বাদ দিয়ে সেরা ফুটবলারের হিসাব কষা।এই একই ভয় আছে, Quentin Tarantino, Christopher Nolan আর David Fincherকে নিয়েও।তারাও মনে হয় কোনোদিনই এই পুরস্কারটা হাতে পাবেন না।ফিঞ্চার অবশ্য এ বছর পেয়েও যেতে পারেন।তবে, Se7en, Fight Club, Benjamin Button-এ না দিয়ে; The Social Network মুভিটির জন্য অস্কার দিলে তার প্রতি কিছুটা অবিচারই করা হবে।ঠিক যে অবিচারটি করা হয়েছিলো Martin Scorsese-এর প্রতি।Raging Bull, Taxi Driver, Goodfellas ছেড়ে তাকে অস্কার দেওয়া হয়েছিল “তুলনামূলকভাবে দুর্বল” The Departed মুভিটির জন্য।তবে মন্দের ভালো এই যে, আমার খুব পছন্দের দুই মাণুষ অস্কার পেয়েছেন।

Advertisements

লেখাটির ব্যাপারে আপনার মন্তব্য এখানে জানাতে পারেন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s

%d bloggers like this: