ডাইনোসর যুগ ও তৎপরবর্তী কিছু বিলীন হয়ে যাওয়া প্রাণী যাদের কে কখনো আমরা মনে করি না

আমরা সব সময়েই ডাইনোসরের কথা জানি এবং তাদের নিয়ে মাঝে মাঝে কৌতুহল বসত পড়াশুনা ও করে থাকি।কিন্তু সেই ডাইনোসর যুগে ডাইনোসর ই এক মাত্র প্রাণী পৃথিবী তে ছিল না,তার সাথে ছিল আরো অনেক প্রাণীই যাদের আমরা কখনো মনে করি না।তারা প্রত্যেকেই নিজ নিজ অবস্থান থেকে ছিল পরাক্রমশালী।আমরা আজ তাদের কথাই জানবো।

নীচে তাদের বিবরণ দিচ্ছি একে একে:

১: Dunkleosteus: এটা ছিল একটি প্রাগৈতিহাসিক বিশাল এক প্রকার মাছ।এরা ৩৩ ফুট দীর্ঘ ছিল।এদের শক্ত চোয়াল ছিল যা কিনা বর্তমান কোন টাইগার হাঙ্গারের চোয়াল থেকে ও শত গুন শক্তিশালী ছিল।এদের ওজন ছিল প্রায় চার টন।এরা মাংসাশী প্রজাতির ছিল অর্থাৎ অন্য জলজ প্রাণী খেয়ে এরা বেঁচে থাকতো।এদের দাঁত ছিল না,তা বদলে এদের দুটো চোয়াল ছিল যেটা কিনা শিকার কে চূর্ণ-বিচূর্ণ করে দিত।তবে এরা ভালো সাতারু ছিল না।

pushkin_1272724046_1-dunkleosteus2.jpg

২: Archaeopteryx:এদের কে অনেক বিজ্ঞানী প্রথম পাখি বলে থাকেন।এরা জুরাসিক সময়ের ওপরে বিদ্যমান ছিল বর্তমান জার্মানির দক্ষিণাংশে।এরা উচ্চায় ১ দশমিক ৬ ফুট ছিল।এরা অতটা হিংস্র ছিল না অন্যদের তুলনায়।এদের বিশাল বড় পাখা ছিল,ছোট ছোট ধারাল দাঁত দুই পাটি,সেই সাথে এদের হাতের আঙুলে ধারাল নখ ছিল শিকার করার জন্য।

pushkin_1272724229_2-archaeopteryx-497x400.jpg

৩: Elasmosaur:এদের বসবাস ছিল পৃথিবীতে ১৩৫ মিলিয়ন বছর থেকে ৬৫ মিলিয়ন বছর পূর্বে।এরা ৪৬ ফিট উঁচু এবং ওজন ২ দশমিক ২ টন ছিল।শরীরের অর্ধেক অংশই ছিল গলা নিয়ে।এদের দাঁত ও ছিল এবং এরা দ্রুত সাতার কাটতে পারতো।

pushkin_1272724372_3-elasmosaur-400x400.jpg

৪: Deinotherium: এরা সাধারণত মধ্য মায়ো সিন যুগ থাকে শুরু করে প্লাইসটোসিন যুগের পূর্ব পর্যন্ত পৃথিবীতে ছিল।হারিয়ে যাওয়া প্রাগৈতিহাসিক প্রাণীদের মধ্যে এরা তৃতীয় বৃহত্তর প্রাণী ছিল।এরা লম্বায় ১৫ ফুট ছিল এবং ওজনের দিক দিয়ে ১৬ টনের মত ছিল।এরা দেখতে অনেকটা বর্তমান হাতির মত দেখালেও এরা হাতি থেকে ভিন্ন,কারণ এদের ভিন্নতা লক্ষ করা এদের মাথায় এবং এদের শুঁড়ে।তাছাড়া ও এরা আরেকটু ভিন্ন ছিল এদের চোয়ালের দাঁত এর দিক দিয়ে,এদের দাঁত চোয়ালের নীচের দিকে ছিল।এরা বিরাজমান ছিল এশিয়া,আফ্রিকা ও ইউরোপের অনেক জায়গায়।

pushkin_1272724486_4-deinotherium-438x400.jpg

৫: Opabinia:পৃথিবীতে পাওয়া দুর্লভ প্রজাতির যত গুলো ফসিল পাওয়া গেছে তার মধ্য এদের টা অন্যতম।এদের ফসিল পাওয়া গিয়েছিল ব্রিটিশ কলম্বিয়া তে।এরা সমুদ্র পৃষ্ঠে বসবাস করত।এদের শরীর নরম ছিল।এরা দৈর্ঘে ৭ সেন্টিমিটার পর্যন্ত ছিল।এদের মাথায় ৫ টি চোখ ছিল।মাছের মত এদের শরীরে সাতার কাঁটার সুবিধার জন্য লেজ ছিল।এদের মুখের দিকটা অদ্ভুত ছিল।এদের মুখ খানিকটা পেছনে ছিল এবং সামনের দিকে একখানা শুঁড়ের মত জিনিস ছিল যা কিনা শিকারে ব্যবহৃত হত এবং সেই সাথে খাদ্যকে মুখে নেওয়ার জন্য ও এটি কাজে লাগানো হত।

pushkin_1272724610_5-Opabinia.JPG

৬: Helicoprion: একে অনেক সময় সর্পিলাকার করাত ও বলা হয়ে থাকে।এরা হাঙ্গর এর জ্ঞাতি গোষ্ঠীর অন্তর্ভুক্ত।এদের খুব বেশী ফসিল পাওয়া যায় নি।এদের বসবাস ছিল ২৮০ মিলিয়ন বছর পূর্বে।এরা লম্বায় প্রায় ১০-১৫ ফুট ছিল।এদের একটা জিনিষ বেশ মজার সেটা হচ্ছে এদের নীচের চোয়ালে বৃত্তাকার করাতের মত অনেক দাঁত ছিল।

pushkin_1272724667_6-helicoprion.jpg

৭: Quetzalcoatlus: উড়ন্ত পাখীদের মধ্য এরা সবচেয়ে দীর্ঘকায় প্রাণী।এদের শরীর পশমী ছিল।এদের ডানার দৈর্ঘ্য ৩৬ ফুট এবং এদের উচ্চতা প্রায় ৩২ ফুট ছিল।এদের ভর ছিল ৯০-১২০ কিলোগ্রাম।এদের অনেক সুঁচালো ঠোঁট ছিল যা কিনা খাদ্য মজুদ ও শিকারে ব্যবহৃত হত।এটির ফসিল পাওয়া যায় টেক্সাসে ১৯৭১ সালে।

pushkin_1272724778_7-quetzalcoatlus_612_400.jpg

৮: Dimorphodon: জুরাসিক পর্বের শুরুর দিকে এদের বসবাস শুরু হয়।এদের ফসিল পাওয়া যায় ১৮২৮ সালে ইংল্যান্ড এ।এর চোয়ালের ভিতরে দুই ধরনের দাঁত ছিল।এর লেজ ছিল যা কিনা ৩ দশমিক ৩ ফুট লম্বা ছিল।এর একটা বিশেষ দিক ছিল এর ঘাড় অনেক ছোট ছিল এর মাথার তুলনায়।এর শারীরিক দৈর্ঘ ছিল ৩ দশমিক ৩ ফুট এবং পাখার দৈর্ঘ্য ছিল ৪ দশমিক ৬ ফুট।

pushkin_1272724856_8-dimorphodon_jb.jpg

৯: Jaekelopterus: এদের ফসিল সর্বপ্রথম পাওয়া যায় জার্মানি তে।এরা লম্বায় ৮ দশমিক ২ ফুট ছিল। এর বসবাস পৃথিবীতে ৩৯০ মিলিয়ন বছর পূর্বে ছিল। এটি কে অনেকেই বলে থাকেন সামুদ্রিক বৃশ্চিক। এটি সাধারণত নদীতে থাকত। এর সামনের দিকের দুটো হাত শিকার ও খাদ্য গ্রহণে ব্যবহৃত হত। যেটার দৈর্ঘ্য ১৮ ইঞ্চি ছিল।

pushkin_1272724928_9-6a00d8341ed39853ef0120a57a28e5970c-800wi.jpg

১০: Hallucigenia: এর ফসিল প্রথম পাওয়া যায় ব্রিটিশ কলম্বিয়াতে,কানাডা এবং সাম্প্রতিক কালে চীন এ।এটি ০ দশমিক ৫ সেঃ মিঃ থেকে ৩ সেঃ মি পর্যন্ত লম্বা ছিল।এর শরীরের উপরিভাগে কাঁটা ছিল। পেছনের দিকে লেজের মত বাঁকানো অংশ ছিল ভারসাম্য রক্ষার জন্য।

pushkin_1272725030_10-Hallucigenia.jpg

১১: Archelon: প্রাগৈতিহাসিক কচ্ছপ বলা হয় এটি কে।এটি সমুদ্রে অনেক আস্তে আস্তে চলত। ৬৫ থেকে ১৪৬ মিলিয়ন বছর পূর্বে এদের বিচরণ ছিল পৃথিবী তে। এটি লম্বায় ১৫ ফুট ছিল।এরা বর্তমান কচ্ছপদের মত সামুদ্রিক আগাছা,জেলিফিশ খেয়ে ১০০ বছর পর্যন্ত বেঁচে থাকত।

pushkin_1272725103_11-11.jpg

১২: Archelon: এরা ইউরোপ ও নর্থ আমেরিকায় বসবাস করতো প্রায় ২০ মিলিয়ন বছর পূর্বে।এদের দাঁত ও চোয়াল অনেক শক্ত ছিল।তাছাড়া ও এদের সামনের দিকে বড় বড় দাঁত ছিল।

pushkin_1272725216_12-12.jpg

১৩: Arsinoitherium: এরা পৃথিবীতে ছিল ৩৬ থেকে ৩০ মিলিয়ন বছর পূর্বে। এর উচ্চতা ৫ দশমিক ৯ ফুট ছিল এবং দৈর্ঘ ছিল ৯ দশমিক ৮ ফুট।এর ৪৪ টি দাঁত ছিল। এর মাথার উপরে দুটো শিং ছিল,তাছাড়া ও গন্ডারের মত নাকে দুটো বড় শিং ছিল।

pushkin_1272725298_13-arsinoitherium.jpg

১৪: Brontotherium: এরা স্তন্যপায়ী ছিল।নাকের উপরি ভাগে শিং ছিল যা আত্মরক্ষায় ব্যবহৃত হত।এরা ৩৪ থেকে ৩২ মিলিয়ন বছর পূর্বে আমেরিকায় বসবাস করত।এরা ৮ ফুট উঁচু ছিল দৈর্ঘ ও প্রষ্হে।এদের ওজন ছিল প্রায় ২ টন।

pushkin_1272725388_14-brontotherium_with_birds_600.jpg

১৫: Tylosaurus: বলা হয়ে থাকে এরা সবচেয়ে বড় সামুদ্রিক টিকটিকি।এরা লম্বায় ২০ থেকে ৪৫ ফুট ছিল।এরা পৃথিবীতে ছিল ৮৮ থেকে ৭৮ মিলিয়ন বছর পূর্বে।এর অনেক দাঁত ছিল এবং এটি অন্য সামুদ্রিক প্রাণী ভক্ষণ করতো। এর ফসিল পাওয়া যায় দক্ষিণ আমেরিকা ও নিউজিল্যান্ড এ।

pushkin_1272725478_15-15.jpg

হয়তো আমরা ও এক সময় এদেরই মত হারিয়ে যাব মহাকালের অতল গহ্বরে।

লেখাটির ব্যাপারে আপনার মন্তব্য এখানে জানাতে পারেন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s

%d bloggers like this: