বাংলাদেশ-রাশিয়া পারমাণবিক চুক্তিঃ কিছু দুর্লভ ছবি!

সচরাচর এসব স্থাপনার ছবি তোলা নিষিদ্ধ হলেও একজন রাশিয়ান ব্লগার বিশেষ অনুমতি নিয়ে কিছু কিছু ছবি তোলেন। চলুন দেখা যাক, এর ভেতরে কী আছেঃ

1.jpg
রাশিয়ার ‘স্মলেন্সক’ সিটিতে অবস্থিত সে দেশের বৃহৎ পারমানবিক পাওয়ার প্লান্ট। ১৯৮২ সালে ৪টি রিএ্যাক্টর স্থাপনের পরিকল্পনা নেয়া হলেও চেরনোবিল দুর্ঘটনার কারণে ৩টি স্থাপনের পর কাজ তখন স্থগিত করা হয়।

2.jpg
রাশিয়ার অন্যতম ১০টি পারমানবিক পাওয়ার প্লান্টের একটি যা সবচেয়ে বড়। এখান থেকে চাহিদার ১/৭ বিদ্যুৎ সরবরাহ করা হয়।

3.jpg
রাশিয়ার চেরনোবিল দুর্ঘটনার পর থেকে পারমানবিক প্রকৌশল এখন অতিরিক্ত সাবধানতা অবলম্বন করে যেগুলো অচিন্তনীয় পর্যায়ের বা আদৌ ঘটবার সম্ভাবনা নেই।

4.jpg
পাওয়ার প্লান্টের বাইরের স্ট্রাকচার যা আনবিক বোমার ১০ গুণ শক্তিশালী বোমার আঘাতেও ধ্বংস হবে না।

5.jpg
চতুর্দিকে ১০ মাইলব্যাপী এলাকা হচ্ছে সিকিউরিটি জোন যা সম্ভাব্য সকল ধরনের নিরাপত্তা সেন্সর ও মনিটরিং ডিভাইস দ্বারা সজ্জিত। এগুলো পরিবেশ-প্রতিবেশ এর সব ধরনের পরিমাপ সংরক্ষণ ও রিপোর্ট করে। প্লান্টের পাশ্বর্বতী স্থানে অত্যন্ত পরিস্কার পানিতে পুর্ণ রাখা হয় প্রয়োজনীয় আকৃতির পুকুর যেখানে নানা প্রজাতির মাছচাষের মাধ্যমে তাদের লাইফ-সাইকেল পর্যবেক্ষণ করা হয়।

6.jpg
স্টেশনে প্রবেশকালে জরুরী কিছু নিরাপত্তামূলক ব্যবস্থা গ্রহন।

7.jpg

8.jpg
প্রত্যেকের জন্য বাধ্যতামূলক ইউনিফর্ম পরা।

9.jpg

10.jpg
ব্যক্তিগত রেডিয়েশন চেকার।

11.jpg
টারবাইন বা বিদ্যুৎ তৈরির জেনারেটর।

12.jpg

13.jpg

14.jpg

15.jpg

16.jpg

17.jpg

18.jpg

19.jpg
প্রধান রিঅ্যাক্টর-হলঘর। কংক্রিটের তৈরি গর্তে স্থাপিত রিঅ্যাক্টর।

20.jpg

21.jpg
ইউরেনিয়াম২৫৫ পারমানবিক রিঅ্যাক্টরে ব্যবহৃত জ্বালানী। সবুজ রঙের টিউবে এই জ্বালানী ভরা হয়।

22.jpg

23.jpg

25.jpg
ছবিতে একটি নীল আলোর আভা দেখা যাচ্ছে যেটি রয়েছে ৮ ফুট গভীরে, এটা ঘটছে ‘সেরেংকোভ এফেক্ট’র কারণে। যখন কোনো বিদ্যুৎ সঞ্চারিত ইলেক্ট্রন কণা ইনসুলেটরের ভেতরে দিয়ে আলোর গতির চেয়েও বেশি গতিতে প্রবাহিত হয় তখন এই নীল ইলেক্ট্রোম্যাগনেটিক রেডিয়েশন উৎপন্ন হয়।

26.jpg
মেইন কন্ট্রোল পয়েন্ট।

27.jpg

29.jpg

30.jpg

33.jpg

38.jpg

39.jpg

40.jpg

এই হচ্ছে তাই। আমাদের প্রকল্পের ভেতর-বাহির, এর সাজ-সজ্জা হবে অনেকটা এরকমই। অতএব, আমাদের প্রস্তুতি নেবার এখনই সময়। এই প্রস্তুতি নেবে নতুন প্রজন্মের বুদ্ধিমানরা। আর এটা যদি হয় তহালে তা হবে বাংলাদেশের উন্নয়নের এক নবযুগের সূচনা।

Advertisements

লেখাটির ব্যাপারে আপনার মন্তব্য এখানে জানাতে পারেন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s

%d bloggers like this: