মালয়েশিয়ান আনোয়ার ইব্রাহিম ও ফিলিপিনো নয় নয় একুইনো

ইতিহাস মানুষকে ভুলের মাশুল দেবার বা ভুল সংশোধনের সুযোগ এনে দেয় বারবার, এমন ইতিবাচক ধারণায় কেউ যদি বিশ্বাস করে, তেমন আশাবাদী মানুষদের বিশ্বাস দৃঢ় করে ফিলিপাইনের প্রেসিডেন্সিয়াল নির্বাচনে বেনিগনো একুইনো থ্রি’র বিজয়ের ঘটনা।

ফিলিপিনো জাতির জন্য গণতন্ত্র পুন:প্রতিষ্ঠার সংগ্রাম করতে গিয়ে তাঁর বাবা প্রাণ দিয়েছেন, ঐ নির্মম ঘটনার পর প্রায় সাতাশ বছর হতে চললো। তিরাশির আগষ্টে ম্যানিলা বিমানবন্দর টারমাকে সেই নিয়তি-নির্ধারিত ঘটনার পর ঘুরে দাড়িয়ে আবারও তাঁর মা গণতন্ত্র সমুন্নত করেছিলেন, তার পরও প্রায় চব্বিশ বছর হতে চললো।

নয়নয়ের বাবা বেনিগনো একুইনো জুনিয়রকে তাঁর মৃত্যুপরবর্তী প্রতিক্রিয়ার জেমস সিন ফিলিপিনো সাহসের প্রতীক হিসেবে দেখিয়েছেন। জুনিয়র বেনিগনো যদি হন নির্যাতনের সামনে দাড়ানো ফিলিপিনো সাহসের চিহ্ন, তাহলে তাঁর মা কোরাজন একুইনোকে বুঝতে হবে জনগণের অদম্য মানসিক শক্তির চিহ্ন হিসেবে।

নয়নয়ের এ বিজয়ে গণতন্ত্রের মশাল রিজালিয়ান সভ্যতার গর্বিত উত্তরসূরী এমন এক ফিলিপিনো প্রজন্মের হাতে এসে পৌছলো, যারা সে দেশ গণতন্ত্রের পথে যাত্রা শুরুর পর জন্ম নিয়েছে। ইতিহাসের পথে ঐ ঘটনাবহুল যাত্রায় আকস্মিক এবং নৃশংস বাঁকগুলো এ প্রজন্মকে ঋদ্ধ করেছে, সংগ্রামের প্রচন্ডতা এবং হতাশার অভিজ্ঞতা তাদেরকে শিক্ষিত করেছে। কোন মুখোশধারী শাসক কিংবা স্বৈরাচারী স্বার্থ এই গণতন্ত্রের অভিযাত্রাকে রুদ্ধ করবে, এই প্রজন্ম এমনটা হতে দেবেনা বলেই আমি মনে করি।

নয়নয়ের এ ঐতিহাসিক বিজয়ের পরবর্তী দিনে আমি তাঁর পিতার এক প্রতিক্রিয়াকে স্মরণ করছি। অবশ্যম্ভাবী নিয়তির দিকে যেতে গিয়ে তিনি থেমে যাননি। দেশে ফেরার ঠিক পূর্বমুহুর্তে তিনি দস্তভয়স্কির উক্তি উদ্ধৃত করেছিলেন, “ঈশ্বর, আমাকে আমার কষ্টকর অভিজ্ঞতার যোগ্য করুন”।

এ প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের ফলাফলের পর আমি আশা করি, এবং নিশ্চিতভাবে ফিলিপাইনের শুভাকাঙ্খী প্রত্যেক আসিয়ান নাগরিকের আশা এটাই,সে দেশের জনগণ এমন একজন গণতন্ত্রের মশালবাহী পেয়েছেন, যিনি তাদের দীর্ঘদিনের দুর্ভোগের পর ইতিহাসের যথার্থ প্রতিদান। যিনি সেই ভোগান্তির অভিজ্ঞতাকে গণতান্ত্রিক পূর্ণতা এবং অর্থনৈতিক সমৃদ্ধির আলোকিত সম্ভাবনায় রুপান্তরিত করবেন।

লেখাটির ব্যাপারে আপনার মন্তব্য এখানে জানাতে পারেন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s

%d bloggers like this: